৭০০ ক্যামেরার মাধ্যমে চট্টগ্রাম মহানগরের বিভিন্ন গুরত্বপূর্ণ স্থান পর্যবেক্ষণে

জাহাঙ্গীর আলম চট্টগ্রাম: অপরাধ নিয়ন্ত্রণে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের নতুন উদ্যোগ”EYES OF CMP অ্যাপস’ সেবা।
চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন রুটে চলা যাত্রীবাহী বাসে গন্তব্যের ভাড়ার পরিমাণ সম্পর্কে জানা যাবে। এছাড়া ৭০০ ক্যামেরার মাধ্যমে নগরের বিভিন্ন গুরত্বপূর্ণ স্থান ২৪ ঘন্টা পর্যবেক্ষণের জন্য উদ্বোধন করা হয়েছে ‘আইজ অব সিএমপি’ নামে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ।
২৫ নভেম্বর, বৃহস্পতিবার উক্ত কার্যক্রমের উদ্ধোধন করেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর, পিপিএম।
এ উদ্যোগের আওতায় মহানগরীর গুরুত্বপূর্ণ স্থানের ৭০০ টি সিসিটিভি ক্যামেরা প্রাথমিকভাবে নির্বাচন করা হয়। ৭০০ টি ক্যামেরার মধ্যে গুরুত্ব বিবেচনায় ৪১১ টি ক্যামেরার সংযোগ দেয়া হয় সিএমপির কন্ট্রোল রুমের সাথে এবং অবশিষ্ট ৩২৪ টি ক্যামেরা ২৪/৭ অনস্ক্রিন সচল থাকে। এসব ক্যামেরার ধারণকৃত ফুটেজ ১৫ দিন পর্যন্ত হার্ডডিস্কে সংরক্ষিত থাকবে। সার্বক্ষণিক দুইজন অপারেটর এই সকল ক্যামেরার কার্যক্রম মনিটরিং করবে। পাশাপাশি একটি ট্যাকনিক্যাল টীম মাঠ পর্যায়ে কাজ করবে এসকল ক্যামেরার কার্যক্রম সচল রাখার জন্য। নগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান জিইসি, দুই নং গেইট, বহদ্দারহাট, মুরাদপুর, অক্সিজেন, পতেঙ্গা সহ প্রায় ৭০ টি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে এই ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে।
এর মাধ্যমে একটি ডিজিটাল কন্ট্রোল রুম স্থাপন করে একটি নির্দিষ্ট রুম থেকে সমগ্র মহানগরী এলাকা পর্যবেক্ষণ সম্ভব হবে। ফলে সেবার মান বৃদ্ধি পাবে। অপরাধীদের অপরাধ প্রবণতা কমে যাবে, অপরাধ নিয়ন্ত্রণ ও আসামী সনাক্তকরণ সহজতর হবে।
ভবিষ্যতে এ কার্যক্রমের আওতায় সমগ্র মহানগরী এলাকাকে সিএমপির নিজস্ব ক্যামেরার অধীনে নিয়ে আসা হবে। অপরাধ নিয়ন্ত্রণে স্থাপন করা হবে ফেইস ডিটেকশন ও নাম্বার রিডেবল ক্যামেরা। তৈরী করা হবে ভিডিও ভিত্তিক ক্রাইম ম্যাপ। সম্ভাব্য অপরাধ প্রবণ এলাকা চিহ্নিত করে ঐসকল এলাকায় বিশেষ আইপি ক্যামেরার সাথে ডিউটিরত পেট্রোল গাড়ির সংযোগ স্থাপনের মাধ্যমে অপরাধ নিয়ন্ত্রণ করা।
এছাড়া সম্মানিত নগরবাসীর সুবিধার্থে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের উদ্যোগে চালু হল ‘বাসের ন্যায্য ভাড়া’ কার্যক্রম। এই উদ্যোগের আওতায় সিএমপির নিজস্ব ‘হ্যালো সিএমপি’ অ্যাপসে নগরীর সকল রুটের ভাড়ার তালিকা সংযোজন করা হয়েছে। চলাচলের সময় নগরীর জনসাধারণ সহজেই তার নির্ধারিত গন্তব্যের ভাড়া সম্পর্কে নিশ্চিত হতে পারবেন। পাশাপাশি এ সংক্রান্তে বাসের ড্রাইভার কিংবা হেল্পার কর্তৃক ভাড়া আদায় সংক্রান্তে কোন ধরনের হয়রানির শিকার হলে নিকটস্থ ট্রাফিক পুলিশকে অবহিত করুন। কিংবা তাতক্ষনিকভাবে জাতীয় জরুরী সেবা ৯৯৯ বা সিএমপির কন্ট্রোল নাম্বার ৩০৩৫২/৬৩৯০২২/ ৬৩০৩৭৫ এ অভিযোগ জানালে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
এসময় সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) শ্যামল কুমার নাথ, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার(প্রশাসন ও অর্থ) সানা শামীনুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার(ক্রাইম এন্ড অপারেশন) মোঃ শামসুল আলম, উপ-পুলিশ কমিশনার(সদর) জনাব মোঃ আমির জাফর সহ পুলিশের অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।