হরিরামপুরে টিকা সনদ দেখতে মাঠে নেমেছে পুলিশ

সায়েম খান, , হরিরামপুর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি: সরকার ঘোষিত স্বাস্থ্য বিধি মেনে ব্যবসা বাণিজ্য পরিচালিত হচ্ছে কি না তা যাচাই-বাছাইয়ে অভিযান মাঠে নেমেছেন মানিকগঞ্জের হরিরামপুর থাবা পুলিশ।

৭ ফেব্রুয়ারি (সোমবার) সকাল ১১ টায়  উপজেলার লেছড়াগঞ্জ বাজারের বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ক্রেতা বিক্রেতাসহ পথচারীদের মাঝে করোনা ভাইরাসের টিকা নেওয়া আছে কি না তা নেমে যাচাইবাছাই করা হয়।

হরিরামপুর থানার অফিসান ইনচার্জ সৈয়দ মিজানুর ইসলাম এর নেতৃত্বে অভিযানে কারও টিকা দেওয়া না থাকলে পুলিশের উদ্যোগে ওই সকল ব্যক্তিকে টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করার জন্য নেয়া হয় ৫০ শয্যা বিশিষ্ট হরিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স।

পুলিশের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। সকাল ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত হরিরামপুর উপজেলার বিভিন্ন বাজারে, রাস্তাঘাটে, মুদি মনিহারী দোকানে করোনা ভাইরাসের টিকা সনদের যাচাবাছাইয়ের অভিজান পরিচালিত হয়। এতে ক্রেতা ও বিক্রেতাদের সঙ্গে থাকা টিকার সনদ দেখা হয়। অনেকেই সঙ্গে সনদ দেখাতে না পারলেও মোবাইল ফোনে মেসেজ দেখান। সেই সাথে অনেকেই টিকার সনদ বা মোবাইল ফোনে মেসেজ দেখাতে পারেনি এবং টিকা নেননি তাদের পুলিশের সহযোগিতায় তাৎক্ষণিক টিকা দেওয়ার জন্য টিকা প্রদানকারী কেন্দ্রে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

পুলিশের এই অভিযান চলাকালে যাদের টিকা দেওয়া নেই তাদের দ্রুত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে সটকে পরতেও দেখা যায়। শুধু বিক্রেতাই নয়, পুলিশের জেরার মুখে পড়েন নানা বয়সী নারীও পুরুষ ক্রেতাসহ পথচারীরাও। আবার দেখা যায়, ক্রেতারা অনেকই টিকার সনদ সঙ্গে নিয়েও মার্কেটে ঢুকেছেন।

এ ব্যাপারে হরিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ মিজানুর ইসলাম জানান, “জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ গোলাম আজাদ, পিপিএম (বার) স্যারের নির্দেশে টিকা সনদ যাচাই-বাছাইয়ে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এতে আজ টিকা নেয়নি এমন দশ জনকে টিকা দেয়ার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়। পর্যায়ক্রমে উপজেলার সকল হাটবাজারসহ রাস্তাঘাটে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।”