স্বামীবাগ এলাকা হতে রাষ্ট্রবিরোধী অপপ্রচারের গ্রেফতার-৫

মাসুদ রানাঃ সাম্প্রতিক সময়ে র‍্যাব সাইবার মনিটরিং সেল কর্তৃক নিয়মিত সাইবার পেট্রোলিং এ পর্যবেক্ষণ করা হয় যে,অনলাইন প্লাটফর্র্ম ব্যবহার করে রাষ্ট্রবিরোধী, রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয় এমন সংবেদনশীল বিষয়ে মিথ্যা এবং অতিরঞ্জিত তথ্য বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্রমূলক বিভিন্ন অপপ্রচার চালাচ্ছে। রাষ্ট্রবিরোধী কার্যক্রমের সাথে জড়িতদের আইনের আওতায় নিয়ে আসতে র‍্যাবের সাইবার মনিটরিং এর মাধ্যমে গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধি করে।

এরই ধারাবাহিকতায় র‍্যাব-৩ এর একটি আভিযানিক দল সুনির্দিষ্ট তথ্যেও ভিত্তিতে

রাজধানীর স্বামীবাগের মিতালী স্কুল গলি রোড এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে মোঃ আব্দুল্লাহ,মোঃ ওয়ায়েজ কুরুনী,মোঃ তাওহীদুল ইসলাম,মোঃ গাজী সাখাওয়াত,মোঃ হাবিবুর রহমান’কে গ্রেফতার করে। উক্ত অভিযানে জব্দ করা হয় ল্যাপটপ, পোর্টেবল হার্ডডিস্ক ও বিভিন্ন দেশবিরোধী, নাশকতা ও উস্কানীমূলক লিফলেট। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা রাষ্ট্রবিরোধী চক্রান্ত ও নাশকতায় উস্কানীমূলক কর্মকান্ডে জড়িত থাকার বিষয়ে তথ্য প্রদান করে।

গ্রেফতারকৃতদের নিকট হতে উদ্ধারকৃত আলামত বিশ্লেষণ এবং জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানায় যে, বর্তমান রাষ্ট্রের উন্নয়নের গতি ধারাকে বানচাল ও নস্যাৎ করার জন্য রাষ্ট্রের শান্তি-শৃংখলা বিঘ্ন সরকারের বিরুদ্ধে নানা প্রকার অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্র, সরকারের সম্পদ ও জনসাধানের জান, মালের ক্ষতি, শান্তি প্রিয় জনমনে আতংক সৃষ্ঠির লক্ষ্যে ষড়যন্ত্র করার পরিকল্পনা গ্রহণ করে। তারা অনলাইনে রাষ্ট্র, রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি এবং প্রতিষ্ঠান বিরুদ্ধে অপপ্রচারে লিপ্ত।বিভিন্ন মাধ্যমে দেশের বাইরে মিথ্যা তথ্য প্রদান এবং অপপ্রচার চালিয়ে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার চেষ্টা করে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিরুদ্ধে অপপ্রচারের অংশ হিসেবে তারা দেশের বাইরে বিভিন্ন সংস্থার নিকট কল্পিত এবং বানোয়াট তথ্য প্রেরণ করে বলে জানায়। বিগত সময়ের বিভিন্ন ইস্যু সাম্প্রতিক সময়ে “নিরাপদ সড়ক চাই” আন্দোলন’কে পুঁজি করে তারা অসৎ উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার অপচেষ্টা করে। আন্দোলনকে উস্কে দিয়ে তারা অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে অপচেষ্টা চালায়।

গ্রেফতারকৃত সকলেই দীর্ঘদিন রাষ্ট্র বিরোধী কর্মকান্ডে জড়িত। অসৎ উদ্দেশ্যে পরিচালিত এই রাষ্ট্রবিরোধী কার্যক্রমে তারা সংঘবদ্ধভাবে ক্লোজড গ্রুপের মাধ্যমে পরিচালনা করে আসছিল বলে জানায়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সমূহের বিভিন্ন পেইজ ও গ্রুপের মাধ্যমে তারা রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকান্ড পরিচালনার জন্য অর্থ সংগ্রহ করতো বলে জানায়।

গ্রেফতারকৃত আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ ও তাওহীদুল ইসলাম এর নামে বিভিন্ন থানায় রাষ্ট্রবিরোধী, নাশকতা, সন্ত্রাস বিরোধী এবং বিস্ফোরক আইনে একাধিক মামলা রয়েছে। তারা বিভিন্ন ধরণের রাষ্ট্রবিরোধী অপপ্রচার ও নাশকতা ও উস্কানীমূলক প্রচারণার কর্মকান্ডে জড়িত রয়েছে।গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।