স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে চাঁপাইনবাবাগঞ্জে নৌকা বাঁইচ প্রতিযোগিতা

আব্দুল্লাহ আল মামুন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ: স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মহান বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাঁইচ উপভোগ করলো হাজারো দর্শক। বাঁইচ দেখতে মহানন্দা নদীর দুই পাড়ে ঢল নেমেছিলো হাজারো মানুষের।

জেলা প্রশাসন ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার যৌথ আয়োজনে শুক্রবার বেলা ১১ টায় খালঘাট থেকে শুরু হয়ে বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন
মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতুতে গিয়ে এ নৌকা বাঁইচ শেষ হয়। রং বেরংয়ের ১২টি নৌকা নিয়ে বাঁইচ দল অংশ নেয়। গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহি এ নৌকা বাঁইচ প্রতিযোগিতা উপভোগ করেন মহানন্দা নদী তীরে দাঁড়িয়ে থাকা হাজার হাজার দর্শক। করতালি দিয়ে প্রতিযোগিদের উৎসাহ প্রদান করেন তাঁরা। প্রায় ২ ঘণ্টাব্যাপী এ নৌকা বাঁইচ প্রতিযোগিতায় প্রথম হয় চৌডালার আবু মাঝির দল, দ্বিতীয় হয় নশীপুরের জয় মাঝির দল ও তৃতীয় হয় চৌডালার পলাশ মাঝির দল। প্রথম পুরস্কার ৪৩ ইঞ্চি স্মার্ট টিভি, দ্বিতীয় পুরস্কার ৩২ ইঞ্চি টিভি ও তৃতীয় পুরস্কার ২৪ ইঞ্চি টিভি প্রদান করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য ফেরদৌসী ইসলাম জেসি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসক মোঃ মঞ্জুরুল হাফিজ, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ রুহুল আমিন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জাকিউল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব আলম খান, অতিরিক্ত

জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মহসিন মৃধা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) কৃষিবিদ আহমেদ মাহবুব উল ইসলাম, পৌর মেয়র মোঃ মোখলেসুর রহমানসহ প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তা। চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার শহর পরিকল্পনাবিদ মোঃ ইমরান হোসেন -এর সঞ্চালনায় আরও উপস্থিত ছিলেন, পৌর সচিব মামুন অর রশিদ, নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ সেলিম উদ্দীন, পৌর কর্মচারী সংসদের সভাপতি মোঃ এনামুল হক, সাধারণ সম্পাদক মোঃ রবিউল আওয়াল প্রমুখ। নৌকা বাঁইচ দেখতে আসা দর্শকরা জানান, এ আয়োজন খুবই আনন্দ দিয়েছে। নৌকা বাঁইচ গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী খেলা। এটি ধরে রাখতে প্রতিবছর আয়োজন করা উচিত। জেলা প্রশাসক মোঃ মঞ্জুরুল হাফিজ জানান, সবার সহযোগিতায় এই নৌকা বাঁইচের আয়োজন করা হয়েছে। সব শ্রেণিপেশার মানুষ আনন্দ ঘন পরিবেশে নৌকা বাঁইচ প্রতিযোগিতা উপভোগ করেছে। সামনে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরবাসীকে আরো ভালো কিছু আয়োজন উপহার দেওয়া হবে।

এদিকে, নবনির্বাচিত পৌর মেয়র মোঃ মোখলেসুর রহমান জানান, আগামীতে ব্যাপক পরিসরে নৌকা বাঁইচের আয়োজন করা হবে।