সাতকানিয়া উপজেলায় বেগম রোকেয়া পদক-২১ জিতেছেন ছদাহার ছফুরা খাতুন 

বেগম রোকেয়া পদক-২০২১' চট্টগ্রাম সাতকানিয়া উপজেলায় 'রত্নগর্ভা মা ও সফল জননী' ক্যাটাগরিতে 'জয়িতা' হয়েছেন ছফুরা খাতুন।

জাহাঙ্গীর আলম ব্যুরো প্রধান চট্টগ্রাম: বেগম রোকেয়া পদক বিতরণ ও বেগম রোকেয়া দিবস-২০২১’ চট্টগ্রাম সাতকানিয়া উপজেলায় ‘রত্নগর্ভা মা ও সফল জননী’ ক্যাটাগরিতে ‘জয়িতা’ নির্বাচিত হয়েছেন ছফুরা খাতুন।

তৃণমূল থেকে বাছাইয়ে ছদাহার রত্নগর্ভা মা ছফুরা খাতুনের নাম সাতকানিয়া উপজেলায় ‘সফল জননী’ হিসেবে নির্বাচিত করে সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাচকমণ্ডলী।

“জয়িতা অন্বেষণে বাংলাদেশ” কার্যক্রমের আওতায় ও বেগম রোকেয়া দিবস – ২০২১ উদযাপন উপলক্ষে সমগ্র বাংলাদেশে উপজেলা পর্যায়ে ১ জন করে এই পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। শত প্রতিবন্ধকতা জয় করে নিজের সন্তানদের উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত ও আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার স্বীকৃতি স্বরূপ সফল জননী হিসেবে তাঁকে এই পুরস্কারে ভূষিত করা হয়।

৯ ডিসেম্বর (বৃহস্পতিবার) বেগম রোকেয়া দিবসের অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এ রত্নগর্ভা মায়ের হাতে ‘জয়িতা’ পুরস্কার তুলে দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফাতেমাতুজ জোহরা।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সালাহউদ্দীন হাসান চৌধুরী, পৌরসভা মেয়র মুহাম্মদ জুবাইর, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক, প্রবীণ শিক্ষাবিদ ও সাতকানিয়া দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ড. জাহেদ হোসেন সিকদার, ছদাহা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোসাদ হোসেন চৌধুরী, নারী নেত্রী ও ইউপি সদস্য সম্পা দেবীসহ প্রমুখ।

উপস্থিত বক্তারা বলেন, নির্বাচিত জয়ীতাদের নিজ নিজ ক্ষেত্রে অসামান্য অবদান রাখার স্বীকৃতিস্বরূপ উষ্ণ অভিনন্দন জানান ও তাদের উত্তরোত্তর মঙ্গল কামনা করেন। পাশাপাশি এই পুরষ্কার ভবিষ্যত প্রজন্মকে উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রাখায় উৎসাহিত করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

রত্নাগর্ভা মা ও সফল জননী ছফুরা খাতুন তাঁর মতামত ব্যক্ত করে বলেন, “আমি চরম দারিদ্র্যের মধ্যেও অত্যন্ত কষ্ট করে আমার সন্তানদের পড়াশুনা করিয়েছি। চাইলে আমি তাদের পড়াশুনা মাঝপথে বন্ধ করে বিভিন্ন কাজ ধরিয়ে দিতে পারতাম। কিন্তু কষ্ট হলেও তা আমি করিনি বলেই আজ তারা উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে স্ব স্ব ক্ষেত্রে প্রতিষ্টিত হয়ে সমাজ ও দেশের কল্যাণে অবদান রাখছে আলহামদুলিল্লাহ। সবাই আমার সন্তানদের জন্য দোয়া করবেন”।

রত্নগর্ভা মা ছফুরা বেগম চট্টগ্রাম জেলার সাতকানিয়া থানার অন্তর্গত ছদাহার প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন মরহুম মাওলানা আহমুদুর রহমানের সহধর্মিনী। তার ছেলে-মেয়েরা নানা পেশায় নিজেদের কর্ম ও গুণের মাধ্যমে আলো ছড়াচ্ছেন। আলোকিত করেছেন সাতকানিয়া উপজেলাকেও। ৮০ বছর বয়সী এই নারী ৭ সন্তানের জননী। তারঁ বাড়ি চট্টগ্রাম জেলার সাতকানিয়া উপজেলার অন্তর্গত ছদাহা জানার পাড়ার মাওলানা মঞ্জিলে।

রত্নাগর্ভা ছফুরা বেগমের এক ছেলে মরহুম মাওলানা ছাবের হেলালী ছিলেন চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার শতবর্ষী দ্বীনি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চুনতী হাকিমিয়া কামিল মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ও প্রবীণ শিক্ষক।  তার আরেক ছেলে এম আইয়ুব নূরী চট্টগ্রাম সরকারি সিটি কলেজের সহযোগী অধ্যাপক ও ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের প্রধান। তার অপর ছেলে ছদাহার প্রিয়মুখ মুহাম্মদ মাহফুজুর রহমান আন্তর্জাতিক ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রামের স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার ডিভিশনের এডিশনাল ডাইরেক্টর ও ইউনিভার্সিটি সায়েন্স ইসলাম মালেশিয়ায় ‘হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট’ এ পিএইচডি গবেষণার শেষ পর্যায়ে আছেন।

এছাড়াও জয়িতা ছফুরা খাতুনের বড় ছেলে মরহুম আব্দুশ শাকুর ছিলেন মিষ্টি জগতের সুপরিচিত  নাম ‘বনফুল এন্ড কোং’র এজিএম এবং অপর এক ছেলে মাওলানা মাহবুবুর রহমান প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী।

তারঁ নাতি নাতনীরাও সবাই পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পোস্ট গ্রাজুয়েট এবং বিভিন্ন সম্মানজনক পেশায় নিয়োজিত আছেন৷