শ্রীপুরে টিউবওয়েল চুরি! নেশার টাকা জোগাড় করতেই বেড়েছে চুরির ঘটনা!

আফসার উদ্দিন আহমাদ,  শ্রীপুর(গাজীপুর)প্রতিনিধিঃ গাজীপুরের শ্রীপুরে ছিঁচকে চোরের অত্যাচারে অতিষ্ঠ সাধারণ মানুষ। গাঁজাসহ নানা নেশার টাকা জোগার করতে এমন ছোটছোট চুরি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।
সরেজমিনে জানা যায়, গত ৪ জানুয়ারি রাতে লোহাগাছ সাতরাস্তা মোড় ভিকার ইলেক্ট্রনিক কারখানার পাশে টিউবওয়েলের মাথা চুরি করে নিয়ে যায় চোরের দল । এর কিছুদিন আগে একই এলাকার সিদ্দিক মিয়ার বাড়ির মুরগী চুরি হয়। এদিকে, গোসিংগা ইউনিয়নের পটকা গ্রামের রাকিব প্রধানের ঘর থেকে মোবাইল ফোন চুরি হয়েছে। একই ইউনিয়নের বেড়াবাড়ি ও বাউনি গ্রামের কৃষকের ৮ গরু চুরির ঘটনা ঘটেছে।
স্থানীয়দের অভিযোগ, রাত হলেই কয়েকটি এলাকায় বিভিন্ন ধরনের মাদক সেবীদের আনাগোনা বাড়ে। লোহাগাছ, পটকা,বাউনি,বিন্দুবাড়ীসহ কয়েকটি গ্রামে গভীর রাতে বসে গাঁজা সেবনের আসর। দারিদ্র্য পরিবারে জন্ম নেওয়া এসব লোকজন মাদকাসক্ত হওয়ায় তারা এলাকায় ছোট ছোট চুরির কাজে জড়িয়ে পড়ছে। প্রশাসনের জরুরি হস্তক্ষেপ না হলে এর পরিধি আরও বাড়বে বলে মত বিশেষজ্ঞদের।
এ বিষয়ে পৌর এলাকার লোহাগাছ গ্রামের হাবিজ উদ্দিন সরকার বলেন, আমার দোকানের সামনে একটা টিউবওয়েল ছিল যা সকলের পানির সমস্যা সমাধান হতো। গত রাতে পাইব কেটে ওই  পানির কল নিয়ে গেছে৷
একই গ্রামের তাইজ উদ্দিন বলেন, এ এলাকায় কয়েকজন গাঁজাখোর মাঝেমধ্যেই রাতের বেলা রেললাইনে বসে আসর জমায়। এখানে পুলিশের অভিযান চালানো দরকার।
 ভাংনাহাটি গ্রামের ময়েজউদ্দিন বলেন, ছিঁচকেচোরদের দৌরাত্ম্যে জনমনে হতাশার জন্ম দিয়েছে। ছোট কিছু চুরি হলে তো আর এ বিষয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দেওয়ার সুযোগ থাকেনা।
শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খোন্দকার ইমাম হোসেন বলেন, আগের চেয়ে অনেকাংশে অপরাধ কমেছে। আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশ কাজ করছে। উপরোক্ত বিষয় গুলোতে অভিযোগ পেলে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।