শিশুকে জোর করে খাওয়ালে কী হয়?

শিশু খেতে চায় না। মায়েরা চিন্তায় দিন কাটান। অনেক বাড়িতেই এ সমস্যা রয়েছে। বড়রা পরামর্শ দেন জোর করে না খাওয়াতে। কোথাও আবার এর উল্টোটাও করা হয়। জোর করেই খাওয়ানো হয় শিশুকে। একবারে খেতে না চাইলে বার বার তাকে খাওয়ানো হয়।

কিন্তু কোনও শিশুকে জোর করে খাওয়ানো কি আদৌ ভালো?

১) শিশুকে জোর করে খাওয়ালে তারা ভালোভাবে সেই খাবার চাবায় না। ঝট করে তা গিলে ফেলার প্রবণতা দেখা দেয়। তাতে সেই খাবার গলায় লেগে বমি হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

২) খাবার ভালোভাবে না চাবালে তার পুষ্টিগুণও পায় না শরীর। অর্থাৎ জোর করে খাবার খাইয়েও লাভ হয় না।

৩) খাবার ভালোভাবে হজমও হয় না যদি তা ঠিক করে চিবিয়ে না খাওয়া হয়। ফলে হজমের গোলমাল দেখা দিতে পারে জোর করে খাওয়ালে।

৪) শিশু খেতে না চাওয়া মানে তার তখন খাবারের প্রয়োজন নেই। তখন যদি তাকে জোর করে খাওয়ানো মানে তার শরীরে অতিরিক্ত খাদ্য প্রবেশ করানো হচ্ছে। এতে ওজন বেশি বেড়ে যেতে পারে। প্রতিদিন এ ভাবে খাওয়ালে তৈরি হতে পারে অকারণে বেশি খাওয়ার অভ্যাসও।

৫) সবের উপরে আরও একটি সমস্যা তৈরি হওয়ার আশঙ্কা আছে। প্রতিদিন জোর করলে খাবারের প্রতি অনীহাও তৈরি হতে পারে শিশুটির।

৬) খাবার গ্রহণে যে স্বাচ্ছন্দ, জোর করে খাওয়ালে তা পায় না শিশু। ভয় তৈরি হয় খাবারের প্রতি। এতে এক সময় শিশুর পছন্দের খাবারের প্রতিও অনাগ্রহ তৈরি হয়।