লবণ চাষিরা যেন লবণের ন্যায্যমূল্য পায় তা নিশ্চিত করা হবে

-শিল্প সচিব জাকিয়া সুলতানা

অনলাইন ডেস্ক: শিল্প সচিব জাকিয়া সুলতানা বলেছেন, দেশিয় লবণ চাষিরা যেন লবণের ন্যায্যমূল্য পায় তা নিশ্চিত করা হবে। শিল্প সচিব বলেন, উৎপাদন থেকে শুরু করে খুচরা বিক্রেতা পর্যন্ত সকল পর্যায়ে লবণের ন্যায্য মূল্যের পাশাপাশি  গুণগত মান নিশ্চিতকরণে শিল্প মন্ত্রণালয় ও এর আওতাধীন প্রতিষ্ঠান বিসিক নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে আয়োডিনযুক্ত লবণ আইন ২০২১ মহান জাতীয় সংসদে পাশ হয়েছে। শিল্প মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রণীত জাতীয় লবণ নীতি ২০২১-এর খসড়া মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে।

আজ কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে লবণ চাষী ও লবণ মিল মালিকগণের সাথে   আয়োজিত মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক)- এর সভাপতিত্বে এ সভায় কক্সবাজার-২ আসনের সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, সংরক্ষিত নারী আসন-৮ এর সংসদ সদস্য কানিজ ফাতেমা আহমেদ, বিসিক-এর চেয়ারম্যান মো: মোশতাক হাসান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতিসহ লবণ চাষী সমিতি ও লবণ মিল মালিক সমিতির প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন। 

শিল্প সচিব বলেন, চাহিদার বিপরীতে উৎপাদনের পরিমাণ কম হওয়ায় প্রাথমিকভাবে ৩ লক্ষ ১৬ মেট্রিকটন লবণ আমদানির জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে সুপারিশ করা হয়েছে। মাঠ পর্যায়ে লবণের বাস্তব মজুদ নিরুপণে জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে শীঘ্রই একটি কমিটি গঠন করা হবে। তিনি উৎপাদন মৌসুমের পূর্বে মে মাসে  লবণের চাহিদা অনুযায়ী বার্ষিক লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণের পাশাপশি সময়াবদ্ধ কর্মপরিকল্পনা প্রণয়নে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা প্রদান করেন। যৌক্তিক সময়ে চাহিদা সাপেক্ষে লবণ আমদানির বিষয়ে সিদ্ধান্ত প্রদান করা হবে মর্মে আশ্বস্ত করেন। উৎপাদন খরচ হ্রাসে প্রকৃত লবণ চাষীদের মাঝে জেলা প্রশাসন ও ভূমি মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় প্রয়োজনে অধিগ্রহণপূর্বক জমি বরাদ্দের উদ্যোগ নিতে বিসিকের প্রতি আহবান জানান। 

তিনি  মানসম্পন্ন এবং অধিক পরিমাণ লবণ উৎপাদনে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ানোর তাগিদ দেন। ভোজ্য লবণে মূল্যে কৃত্রিম ঊর্ধগতি রোধ এবং প্রকৃত ওজনে বিক্রয় নিশ্চিতকরণে সংশ্লিষ্টদের  নিয়মিত মনিটরিং ও মোবাইল কোর্ট পরিচালনার পরামর্শ  দেন।

 পরে তিনি চৌফলদন্ডি লবণ প্রদর্শনী ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, লবণ মাঠ ও ইসলামপুর লবণ মিলস  পরিদর্শন করেন।