মোহনপুরে ব্রীজের মুখ বন্ধ করে পুকুর খনন

মোহনপুর প্রতিনিধিঃ রাজশাহীর মোহনপুর ব্রীজের মুখ বন্ধ করে একটি পুকুর খনন করছেন প্রভাবশালী ব্যক্তি। উপজেলার সীমান্তবর্তী শিবনদীতে রায়ঘাটি ইউনিয়নের পারিলাডাংগা বিলের পানি উঠানামার করে। এজন্য পারিলাডাংগার দুই বিলের মাঝখান দিয়ে তানোর উপজেলার করিশা ও উপজেলা ঘাষিগ্রাম ইউনিয়নের ভড় বড়াইল যাতায়াতের একমাত্র সংযোগ রাস্তা রয়েছে। আর এই রাস্তার দুপাশের বিলের পানি চলাচলের জন্য ব্রীজ নির্মান করা হয়েছে।

সম্প্রতি কতিপয় ব্যাক্তি ব্রীজটির মুখে মাটি ভরাট দিয়ে মুখ বন্ধ করে পুকুর খনন করছে। আর এর মাটি রীতিমতো উৎসব করে বিক্রি করছেন ইট ভাটাসহ বিভিন্ন জায়গায়। এতে করে কাদামাটি পড়ে রাস্তার বেহাল দশায় পরিণত হচ্ছে।
এক্সেভেটর (ভেকু) দিয়ে মাটি কেটে এসব মাটি যাচ্ছে ইট ভাটায় ও বিভিন্ন মানুষের জমিতে। আর এ কাজে প্রায় ২০ টি ট্রাকটর দিয়ে মাটি বহনে পাকা দুর্বল রাস্তা আরো দেবে গিয়ে কাদামাটিতে একাকার হয়ে গেছে। এতে ঘটছে দূর্ঘটনা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আত্রাই এলাকার সাইফুদ্দিন মেম্বার ব্রিজের মুখ বন্ধ করে পুকুর খনন করছেন।

কাজটি শুরু হয়েছে গত মঙ্গলবার থেকে। কাজটি পরিচালনা করছেন সাইফুদ্দীন মেম্বারের ছেলে বিপ্লব। এখানে এক্সেভেটর বা ভেকু ঘন্টায় ভাড়া দিয়েছেন শাহ আলম নামে এক ভেকু ব্যাবসায়ী। আর মাটি কিনে সংগ্রহ করে রাখছেন পার্শ্ববর্তী ভাটা মালিক। আর মাটি বানিজ্য করে টাকা কামাচ্ছেন এর সাথে সংশ্লিষ্টরা। একাজে দ্বায়িত্বরত বিপ্লব বলেন, ব্রীজের মুখ বন্ধ করা হচ্ছেনা, সামনে মাটি কেটে জায়গা পরিস্কার করা হচ্ছে। তবে মাটি ইট ভাটায় বিক্রি ও রাস্তা নষ্টের ব্যাপারে তিনি কিছু বলেননি। তবে এলাকাবাসী এবং এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করা পথযাত্রীরা একাজের তিব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, কতিপয় ব্যাক্তির লাভের কারনে রাস্তাটির ব্যাপকভাবে ক্ষতি হচ্ছে।

ভেংগে যাচ্ছে পুরো রাস্তাটি। এটা কোন ভাবেই ঠিক হচ্ছেনা। এজন্য তারা দ্রুত প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। যোগাযোগ করার চেষ্টা করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সানওয়ার হোসেনকে ফোনে পাওয়া যায়নি।

মোহনপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাঃ তৌহিদুল ইসলামকে জানানো হলে তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে কথা বলতে বলেন।