মণিরামপুরে ১৬ দলীয় ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত

হোসাইন নজরুল হক, মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি: মণিরামপুরে ১৬ দলীয় ফুলটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা উপভোগ করতে শিশু-কিশোর, বয়বৃদ্ধ ক্রীড়া মোদিরা মাঠ প্রাঙ্গনে এসে কানায় কানায় পূর্ণ করে তোলে। শীতল আবহাওয়ায় সুর্য্য পশ্চিম দিকে হেলে পড়ার সাথে সাথে খেলার মাঠ প্রাঙ্গনে চর্তুদিক হতে আসা দর্শকদের ছিলো উপচে পড়া ভীড়। এমনই উৎসব মুখর পরিবেশে সোমবার বিকেলে ১৬ দলীয় ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয় মণিরামপুর উপজেলা পরিষদ প্যারেড গ্রাউন্ডে।

দূর্গাপুর যুব সমাজের উদ্যোগে উপজেলা প্যারেড গ্রাউন্ডে পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কাবাডি ফেডারেশনের কার্যনির্বাহী সদস্য ও যশোরের সিটি প্লাজার চেয়ারম্যান এস এম ইয়াকুব আলী। তিনি বলেন, স্বাস্থ্য ও মনের বিকাশ ঘটাতে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার পাশিপাশি খেলাধুলা করা অত্যান্ত জরুরী। আজকের এই খুদে খেলোয়াড়রা আগামী দিনে দেশের সুনাম বয়ে আনবেন। খেলাধুলার মাধ্যমে সমাজে শৃঙ্খলাবোধ ও পারস্পরিক সহমর্মিতার মনোভাবের সৃষ্টি হবে। খেলাধুলা দেহ-মনকে সুস্থ রাখে এবং নেশা দ্রব্য থেকে ফিরে রাখে, তাই গ্রামগঞ্জের ছেলেদেরকে মাদকের থাবা থেকে বাঁচাতে খেলাধুলার বিকাশ ঘটাতে হবে।

স্থানীয় কাউন্সিলর আদম আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দৈনিক গ্রামের কাগজের সম্পাদক ও প্রকাশক মবিনুল ইসলাম মবিন, যশোর বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতি জোটের যুগ্ম সম্পাদক আসমা খাতুন লাখী, জেলা আওয়ামীলীগ নেত্রী পুর্ণিমা। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন হাকোবা ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আজিম হোসেন, কামালপুর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর বাবলুর রহমান, কমিটির সদস্য রবিউল ইসলাম, আক্তার হোসেন, শামীম হোসেন প্রমূখ।

ফাইনাল খেলায় অংশ গ্রহণ করে মণিরামপুর উপজেলা ফুটবল একাদশ বনাম লাউড়ী ফুটবল একাদশ। খেলা প্রথমার্ধে ১-১ গোলে সমতা থাকে। দ্বিতীয়ার্ধে আর কোন গোল না হওয়ায় খেলা গড়ায় ট্রাইব্রেকারে। শেষ পর্যন্ত ট্রাইব্রেকারে ৬-৫ গোলে লাউড়ী ফুটবল একাদশ জয় পায়। খেলা শেষে প্রধান অতিথি এস এম ইয়াকুব আলী তার পক্ষ থেকে চ্যাম্পিয়ান দলকে ৪০ হাজার টাকা ও রানার্স আপ দলকে ২০ হাজার টাকা তুলে দেন।