ভারতের কাশীধামের আদলে সীতাকুন্ড শঙ্করমঠে  প্রতিষ্ঠিত শ্রীশ্রী বিশ্বনাথ মন্দিরের শুভ উদ্বোধন

বিশেষ প্রতিনিধি চট্টগ্রাম: ভারতের কাশীধামের আদলে বাংলাদেশে এই প্রথম সীতাকুন্ড শঙ্করমঠে প্রতিষ্ঠিত শ্রীশ্রী বিশ্বনাথ মন্দিরের শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে।
 মঠের শতবর্ষপূর্তি উপলক্ষে ৮ দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য কর্মসূচীর দ্বিতীয় দিন ১৭ নভেম্বর বুধবার সকাল সাড়ে ৮টায় দেশ-বিদেশ থেকে আগত সাধু-সন্তুদের নিয়ে মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জ্বলন, মন্ত্র উচ্চারণ ও ফিতা কেটে মন্দিরের শুভ উদ্বোধন করেন শঙ্করমঠ ও মিশনের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ স্বামী তপনানন্দ গিরি মহারাজ। মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করেন আমেরিকার কলরেডো নিবাসী ঋষিশ্রেষ্ট শ্রীমৎ স্বামী পরমানন্দ সরস্বতী।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকাস্থ রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ স্বামী পূর্ণাত্মানন্দজী মহারাজ। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম রামকৃষ্ণ মিশনের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ স্বামী শক্তিনাথানন্দজী মহারাজ ও বিশিষ্ট দানবীর লায়ন অদুল চৌধুরী। সকাল ৯টায় শ্রীশ্রী বিশ্বনাথ শিব প্রতিষ্ঠা ও রুদ্রাভিষেক  অনুষ্ঠিত হয়। এর পর আচার্যপাদ পরমহংস শ্রীশ্রীমৎ স্বামী স্বরূপানন্দ গিরি মহারাজের ১৫০তম আবির্ভাব দিবস উপলক্ষে সনাতন ধর্ম মহাসম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। মঠের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ স্বামী তপনানন্দ গিরি মহারাজের সভাপতিত্বে ও মঠের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর কেশব কুমার চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত ধর্ম মহাসম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে অংশ নেন শতবর্ষ উৎসব উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক শ্রীমৎ জগদীশ্বরানন্দ ব্রহ্মচারী, অতিরিক্ত সম্পাদক শ্রীমৎ রূপকানন্দ ব্রহ্মচারী, যুগ্ম সম্পাদক শ্রীমৎ পুলকানন্দ ব্রহ্মচারী, মঠের সহ-সভাপতি অধ্যাপক তড়িৎ কুমার ভট্টাচার্য, যুগ্ম সম্পাদক বাসুদেব দাশ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাংবাদিক রনজিত কুমার শীল, প্রকৌশলী সুবল চন্দ্র শীল, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক প্রবাসী প্রসনজিত কুমার শীল, প্রবাসী সাংবাদিক ও ব্যবসায়ী সনজিত কুমার শীল, প্রবাসী ব্যবসায়ী সুজন শর্মা, প্রবাসী ব্যবসায়ী গৌরাঙ্গ শীল, প্রবাসী ব্যবসায়ী শ্যামল শীল প্রমূখ। অনুষ্ঠান উপলক্ষে সকাল থেকে গুরু পূজা, অখন্ড গীতাপাঠের ভাবগাম্ভীর্যপূর্ণ মনোহারিত্ব অনুষ্ঠান, শ্রীশ্রীবিশ্বশান্তি গীতাযজ্ঞ, মঙ্গলারতি, গুরু বন্দনা, হরি ওঁ কীর্ত্তন, শ্রীশ্রী চন্ডি বেদপাঠ করা হয়
প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঢাকাস্থ রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ স্বামী পূর্ণাত্মানন্দজী মহারাজ বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে পালিত হচ্ছে শঙ্করমঠের শতবর্ষপূর্তি উৎসব। একইসাথে  শুভ উদ্বোধন হয়েছে শ্রীশ্রী বিশ্বনাথ মন্দির। মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী সময় থেকে অনেক চড়াই-উৎরাইয়ের মধ্যে দিয়ে শ্রীমদ্ভগবদ্গীতার আদর্শ ও দর্শনে এবং অবকাঠামোগতভাবে শঙ্করমঠ আজ শতবর্ষ অতিক্রম করছে। শতবর্ষের শ্রেষ্ঠ অধ্যাত্ম চেতনাসমৃদ্ধ উপহার হিসেবে শঙ্করমঠ ও মিশনের সাথে শ্রীশ্রী বিশ্বনাথ মন্দিরকে সংযোজন করেছেন মঠের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ স্বামী তপনানন্দ গিরি মহারাজ। যারা বিভিন্ন কারণে ভারতের বানারসের কাশীধামে গিয়ে শ্রীশ্রী বিশ্বনাথ মন্দির দর্শনের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হবে তারাই সীতাকুকুন্ডস্থ শঙ্করমঠে প্রতিষ্ঠিত শ্রীশ্রী বিশ্বনাথ মন্দির দর্শনে জীবনকে ধন্য করতে পারবে।