ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দরপত্র দাখিলে বাধা ও হুমকির অভিযোগ 

মো. আল মামুন,জেলা প্রতিনিধি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া: ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে দরপত্র দাখিলে বাধা ও হুমকির অভিযোগ দায়ের করেছেন এক ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। এই ঘটনায় হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন মেসার্স গালিব এন্টারপ্রাইজ নামক একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। পাশাপাশি এই ঘটনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।

রোববার (২২ মে) বিকেলে প্রতিবেদকের কাছে অভিযোগ ও সাধারণ ডায়েরির কপি হাতে এসেছে।
অভিযোগ ও থানায় দায়ের করা সাধারণ ডায়েরি সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের গত ২০ এপ্রিল ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে আউটসোর্সিং পদ্ধতির মাধ্যমে নিরাপত্তা প্রহরী ও পরিচ্ছন্নতাকর্মী জনবল নিয়োগের দরপত্র আহবান করা হয়। এই দরপত্রে মেসার্স গালিব এন্টারপ্রাইজ অংশগ্রহণ করতে শিডিউল ক্রয় করে। দরপত্র দাখিলের শেষ ও খোলার দিন ১৯ মে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় মেসার্স গালিব এন্টারপ্রাইজের ম্যানেজার এমদাদ ভূইয়া দরপত্র জমা দিতে হাসপাতাল এলাকায় আসেন। এসময় হাসপাতাল মসজিদ এলাকায় আরেক ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স আল আরাফাত সার্ভিসেস প্রাঃ লিঃ প্রতিনিধি মোশাররফ সহ ৭/৮জন এমদাদ ভূইয়াকে শিডিউল জমা না দিয়ে চলে যেতে হুমকি দেন। পরে উপায় না দেখে ম্যানেজার এমদাদ ভূইয়া ফোনে বিষয়টি হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ককে জানিয়ে দরপত্র জমা না দিয়ে চলে আসতে বাধ্য হয়। এই ঘটনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কোন প্রকার ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় গতকাল শনিবার মেসার্স গালিব এন্টারপ্রাইজের ম্যানেজার এমদাদ ভূইয়া বাদি হয়ে তত্ত্বাবধায়ক বরাবর লিখিত অভিযোগ ও সদর মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন।

এই বিষয়ে মেসার্স গালিব এন্টারপ্রাইজের ম্যানেজার ও অভিযোগকারি এমদাদ ভূইয়া বলেন, আমি ঘটনার পর পর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক মোবাইলে জানিয়েছি। কিন্তু তিনি আমলে নেননি। এই আল আরাফাত প্রতিষ্ঠানের মালিকের বিরুদ্ধে ১৯৯৮ সালে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়িতে হামলার ঘটনায় মামলা রয়েছে। তার প্রমাণও অভিযোগের সাথে জমা দিয়েছি।

এই বিষয়ে ২৫০শয্যাবিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. ওয়াহীদুজ্জামান জানান, আমি অভিযোগ পেয়েছি। কিন্তু এই বিষয়ে তো আমার করার কিছু নেই। বিষয়টি থানা পুলিশ দেখবে।

সদর মডেল থানায় দায়ের করা সাধারণ ডায়েরির তদন্তকারী কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) শওকত হাসান বলেন, হাসপাতালে ঠিকাদারকে হুমকি সংক্রান্ত একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। আমরা ইতিমধ্যে এর তদন্ত শুরু করেছি।