বিশ্বনাথে স্বামী-স্ত্রীর করা মিথ্যা মামলায় অতিষ্ঠ প্রবাসীসহ গ্রামবাসী, প্রতিবাদ সভা

ফারুক আহমদ, বিশ্বনাথ প্রতিনিধি: ‘হামলা, ঘর পুড়ানো, ভাংচুর, চাঁদাদাবী, হুমকি প্রদান’সহ একাধিক সাজানো ঘটনায় সিলেটের বিশ্বনাথে উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের সাতপাড়া গ্রামের ‘স্বামী (আবুল কাহার) ও স্ত্রী (ফাতেমা বেগম)’ কর্তৃক দায়েরকৃত একাধিক মিথ্যা মামলায় প্রবাসীসহ গ্রামের বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষকে অভিযুক্ত করে হয়রাণী করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। কাহার-ফাতেমার দায়ের করা মিথ্যা মামলাগুলোতে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন গ্রামের বৃদ্ধ-যুবকেরা।
কাহার-ফাতেমার হয়রাণী থেকে মুক্তি পাওয়া ও একাধিক মিথ্যা মামলা দিয়ে প্রবাসীসহ সাতপাড়া গ্রামবাসীকে অতিষ্ঠ করায় তাদের (কাহার-ফাতেমা) বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের দাবীতে মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারী) দুপুরে সাতপাড়া গ্রামের প্রবাসী হাজী আব্দুল মোমিন ও আব্দুল ররের উদ্যোগে তাদের নিজ বাড়ির আঙ্গিনায় প্রতিবাদ সভা করেছেন গ্রামের ভোক্তভোগীরা।
সাতপাড়া গ্রামের মসজিদের মোতাওয়াল্লী হারুনুর রশীদের সভাপতিত্বে ও প্রবাসী হাজী আব্দুল মোমিনের পরিচালনায় প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন গ্রামের প্রবীন মুরব্বী হাজী চান্দ আলী, হাজী আব্দুল রুপ, ইর্শ্বাদ মিয়া, সংগঠক সেবুল আফসারী।

সভায় বক্তারা বলেন, ‘আব্দুল কাহার ও তার স্ত্রী ফাতেমা বেগম’ একের পর এক ঘটনা সাজিয়ে সাতপাড়া গ্রামের সহজ-সরল মানুষদেরকে অভিযুক্ত করে একাধিক মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করে আসছেন। তাদের তাদের করা কোন মামলারই কোন ভিত্তি নেই। এমনকি মামলায় তাদের মানিত স্বাক্ষীগণও আদালতে এফিডেভিট দিয়ে মামলা মিথ্যা বলে স্বীকার করছেন। এরপরও থেমে নেই কাহার-ফাতেমা গংরা। তারা শান্ত সাতপাড়া গ্রামকে আজ অশান্ত করেছেন। যা সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে বেরিয়ে আসবে। আর সুষ্ঠ তদন্ত সাপেক্ষে সাতপাড়া গ্রামবাসীকে ‘কাহার-ফাতেমা গংদের’ হয়রানি থেকে রক্ষা করার ও মামলাবাজ ‘কাহার-ফাতেমা গংদের’ বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য পুলিশ প্রশাসনসহ সরকারের প্রতি জোরদাবী জানান ভোক্তভোগীরা।

এসময় সভায় মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাতপাড়া গ্রামের আব্দুল রব, কবির মিয়া, ইলাছ আলী, মানিক মিয়া, নেছার আলী, লালা মিয়া, আব্দুল খালিক, জালাল উদ্দিন, মুনাফর আলী, আলী আহমদ, মারুফ আহমদ, আব্দুল বাছিত, আব্দুল ওয়াহিদ, আব্দুল হামিদ, আব্দুর রশীদ, আব্দুস শহীদ, সারোয়ার মিয়া, আব্দুল মতিন, সায়েক আহমদ, তাহেদ মিয়া, আকবর আলী, সেকুল মিয়া, আব্দুশ শহিদ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।