বিশ্বনাথে স্কুল ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির চেষ্টার ঘটনায় থানায় মামলা, আটক ২

ফারুক আহমদ, বিশ্বনাথ প্রতিনিধি: সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা সদরের আল-হেরা শপিং সিটির সামনে এক স্কুল ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির চেষ্টার ঘটনায় ২ জনকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। স্কুল ছাত্রীর ভাই বাদী হয়ে ৮ জনের নাম উল্লেখ করে ও আরও ৩ জনকে অজ্ঞাতনামা অভিযুক্ত করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং-৬ .০৯/১২/২০২১। ঘটনার সাথে সাথেই পুলিশ দু’জনকে ঘটনাস্থল থেকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতরা হলো-উপজেলার আনরপুর গ্রামের শফিকুর রহমানের পুত্র মনোয়ার হোসেন হাছান উরফে মান্না (১৮) ও মুফতিরগাঁও (টিএনটি রোড) গ্রামের জালাল মিয়ার পুত্র লালন মিয়া (১৮)। অন্যান্য অভিযুক্তরা ঘটনার পর পলাতক রয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ৮ম শ্রেণিতে পড়ুয়া স্কুল ছাত্রী শপিং করতে মঙ্গলবার ৭ ডিসেম্বর বিকেলে বিশ্বনাথ পৌর শহরের আল-হেরা শপিং সিটিতে যান। শপিং শেষে সন্ধ্যায় ওই স্কুল ছাত্রী বাড়ির উদ্দেশ্যে শপিং সিটি থেকে বের হলে গ্রেফতারকৃত লালন ও হাছানের সহযোগী জহির ও আছলাম নামের দুই বখাটে স্কুল ছাত্রীকে দেখে অশ্লীল কথাবার্তা ও অঙ্গভঙ্গি করে এবং তার শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিয়ে যৌন নিপিড়ন করে।
এসময় স্কুল ছাত্রী পুনঃরায় শপিং সিটিস্থ ভাইয়ের দোকানে গিয়ে বিষয়টি অবহিত করে। এরপর বিষয়টি শুনে স্কুল ছাত্রীর ভাই দোকান থেকে বের হয়ে শপিং সিটির সামনে এসে বখাটে জহির ও আছলামকে পেয়ে বোনের সাথে খারাপ আচরণের কারণ জিজ্ঞেস করা মাত্রই জহির ও আছলাম অন্যান্য অভিযুক্তদের সাথে নিয়ে লাঠিসোঠা দিয়ে বাদি ও স্কুল ছাত্রীকে এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করেন।
এসময় অভিযুক্তরা স্কুল ছাত্রীর সাথে থাকা পার্সব্যাগে রক্ষিত একটি আইফোন-৬ মডেলের মোবাইল ফোন ও নগদ সাড়ে ৯ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে বাদি ও স্কুল ছাত্রীর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে অভিযুক্তরা তাদেরকে (বাদী ও স্কুল ছাত্রী) প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করার চেষ্টা করে। এসময় পুলিশ দু’জনকে আটক করতে সক্ষম হয়।

মামলা দায়েরের সত্যতা স্বীকার করে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) গাজী আতাউর রহমান বলেন, অন্যান্য অভিযুক্তদের গ্রেফতারে পুলিশী অভিযান অব্যাহত রয়েছে।