পাকিস্তান দুইবার সফর করবে নিউ জিল্যান্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক: দ্বি-পাক্ষিক সিরিজ মানেই একে অপরের বিপক্ষে একবার করে নিজ নিজ দেশে খেলবে। কিন্তু এবার নিউ জিল্যান্ড দল ৫ মাসের ব্যবধানে দুইবার পাকিস্তান সফর করবে। যেখানে তারা তিন ফরম্যাট মিলে খেলবে ১৫টি ম্যাচ। ২টি টেস্টে, ৮টি ওয়ানডে ও ৫টি টি-টোয়েন্টি।

নিউ জিল্যান্ডের এই দুইবার সফরের কারণে স্থগিত হয়ে যাওয়া একটি সিরিজও আছে। এ বছরই অক্টোবরে নিউ জিল্যান্ড দল পাকিস্তান সফর করেছিল। সিরিজ শুরুর দিন সকালে তারা হঠাৎ করেই নিরাপত্তা ইস্যু দেখিয়ে,না খেলার সিদ্ধান্ত নেয়। পরে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান হস্তক্ষেপ করেও রাজি করাতে পারেননি।

নিউ জিল্যান্ড দুই পঞ্জিকা বর্ষে এই সফর করবে। কিন্তু সেখানে সময়ের ব্যবধান মাত্র ৫ মাস। ২০২২ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০২৩ সালের মে মাসে। এমন ফলপ্রসু সিদ্ধান্ত হয়েছে দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ডের বৈঠকে। বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছিল দুবাইয়ে। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান রমিজ রাজা ও নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান মার্টিন স্নেডেন।

এমন একটি ফলপ্রসু বৈঠক শেষে রমিজ রাজা নিউ জিল্যান্ড ক্রিকটে বোর্ডকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।বৈঠক শেষে রমিজ রাজা বলেন, ‘আলোচনা খুবই ফলপ্রসু হয়েছে। আমরা খুবই খুশি। এটি সম্ভব হয়েছে দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ডের পারষ্পরিক সৌহার্দ্যপুর্ন সর্ম্পকের কারণে। এজন্য আমরা নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড ও তার চেয়ারম্যানকে ধন্যবাদ জানাই। একই সাথে এমন সিদ্ধান্ত প্রমাণ করে ক্রিকেট বিশ্বে পাকিস্তানের গুরুত্ব।’

২০২২ সালে নিউ জিল্যান্ড পাকিস্তান সফর করবে এফটিপি ( ফিউচার ট্যুরস প্রোগ্রাম) অনুযায়ী। এই সফরে আছে আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের দুটি ম্যাচ ও ওয়ানডে সুপার লিগের তিনটি ম্যাচ। ২০২৩ সালে আসবে এ বছর অক্টোবরে স্থগিত হয়ে যাওয়া সিরিজ খেলতে। তখন থাকবে সামনে থাকবে ভারতে অনুষ্ঠিতব্য ওয়ানডে বিশ্বকাপে। এই সফরে নেই কোনো টেস্ট ম্যাচ। পাঁচটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে।