নড়াইল সদরে ব্লাক রাইচ ধান চাষের সাফল্যের সম্ভাবনা 

সাজ্জাদ তুহিন নড়াইল প্রতিনিধিঃ নড়াইল সদর উপজেলার ৩নং চন্ডিবারপুর ধুড়িয়া গ্রামের নলাবীলে প্রগতিশীল কৃষক মোঃ রিয়াজুল ইসলাম (শাহিন)   কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর এর সহযোগিতায় ব্ল্যাক রাইসের চাষ করা হয়। এবং উপজেলা কৃষি অফিসের পরামর্শ ক্রমে সফলতার মুখ দেখতে পেয়েছে।
জানা গেছে প্রথমে  পরিক্ষানিবেশ ৩৩ শতাংশ জমিতে ১ কেজি ধানের বিজ রোপন করা হয়, যা থেকে ১৫ মন ধান উৎপাদন করা সম্ভব। এমনকি বিশ্ববাজারে চাহিদার সাথে তাল মিলিয়ে এদেশের বাজারে কেজি প্রতি ৮ থেকে ১ হাজার টাকা মল্যে বিক্রি করা যাবে।
(১৩ ডিসেম্বর) সোমবার দুপুর আড়াইটার দিকে আনুষ্ঠানিক ভাবে এই ব্লাক রাইচ ধান কাটা শুরু হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা সদর কৃষি সম্প্রসারণ দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৌরভ দেবনাথ, উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা বিএম জাহিদ শাকিল, মোঃ তাজুল ইসলামসহ স্থানীয় এলাকাবাসী ও কৃষক বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
পরে ব্লাক রাইচ ধান চাষের সফলতা বা সাফল্য অর্জন সম্পর্কে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা সৌরভ দেবনাথ বলেন, আমরা এই ব্লাক রাইচ ধান গবেষণার মাধ্যমে কৃষকদের সহায়তা করে এর সুবিধা অসুবিধা সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত আকারে আলোচনা করেছি। এতে করে মনে হয়েছে সল্প খরচে অল্প জায়গায় এই ধান চাষে সাফল্য অর্জন করা সম্ভব। যা থেকে আমরা অনেক বেশি বৈদেশিক বাণিজ্য রপ্তানির মাধ্যমে দেশের সব যায়গায় ছাড়িয়ে দিতে পারি।
তবে এর জন্য বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে কৃষি গবেষণার মাধ্যমে এ ব্লাক রাইচ ধান চাষের সফলতা সম্পর্কে আরও জানার দরকার আছে বলে আমি মনে করি। যাতে ভুল কোন তথ্যে কৃষক ক্ষতিগ্রস্ত না হয়।
এবিসয়ে কৃষক তরুন শাহিন জানান, আমরা এই ব্লাক রাইচ ধান চাষের শুরুতেই ৩৩ শতাংশ জমিতে সল্প খরচে ১ কেজি বিজ রোপন করি।
যা থেকে আমরা আসা করছি প্রায় ১৫ মন ধান উৎপাদন করতে সক্ষম হবো।তবে এ বিসয়ে এর পরিপূর্ণ সফলতা অর্জন করতে চাই সরকারের আশু দৃষ্টি। তাই জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর কর্মকর্তার মাধ্যমে জানাতে চাই এ বিসয়ে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহনে মর্জি হন।