নড়াইল ফুলতলা এ্যাপ্রোচ রোড নির্মাণে অনিয়মে জমির ক্ষতিপুরন দেওয়ায় মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

সাজ্জাদ তুহিন নড়াইল প্রতিনিধিঃ নড়াইল সদরে অনিয়ম তান্ত্রিক ভাবে নড়াইল ফুলতলা এপ্রোচ রোড নির্মাণে গোরাবাজার ব্রীজ সংলগ্ন ক্ষতিগ্রস্থ্য পরিবারদের ক্ষতিপূরণ দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

২০ জানুয়ারি (বৃহস্পতিবা) দুপুর ১২ টার দিকে নড়াইল সদর কলোড়া ইউনিয়নের গোবরা বাজার নির্মাণাধীন ব্রিজ সংলগ্ন ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার এবং এলাকাবাসীর আয়োজনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয।

এ সময় মানববন্ধনে সংক্ষিপ্ত আকারে বক্তব্য প্রদান করেন সিংগা শৈলপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ হোসেন আলী শেখ, সাংবাদিক বিজয় রায়, রেজাউল করিম, জগদীশ  মজুমদার, জালাল, নবীর আলী, অলিয়ার, সামছুর রহমান, ইমান আলী, মিনা বেগম, দিপালী বেগম ফাতেমা বেগম, নার্গিস বেগম সহ আরও অনেকে।

সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম শফিক তার সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন, আমাদের সাড়ে ১৮ শতক জমির উপর কয়েকটি দোকানঘর ও বসতবাড়ি রয়েছে। আমরা ২৫ বছর ধরে সরকারকে বানিজ্যিক হারে খাজনা পরিশোধ করে আসছি।অথচ আমাদের বানিজ্যিক হারে ক্ষতিপুরন দেওয়া হচ্ছেনা বরং ডোবা হিসাবে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হচ্ছে। এ বিষয়ে আমি মাননীয় সাংসদ ও জেলা প্রশাসক এর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছি যাতে আমরা প্রকৃত পাওনা বুঝে পাই।

এছাড়া উপস্থিত অন্যান্য বক্তারা বলেন,নড়াইল-ফুলতলা সড়ক নির্মাণের ফলে গোবরা বাজারের প্রায় ৪০টি দোকান ও কয়েকটি বসতবাড়ি ভাঙ্গা পড়েছে। দীর্ঘ ২৫ বছর ধরে এসব দোকানে আমরা বিভিন্ন ধরণের ব্যবসা করে আসছি। বাণিজ্যিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হিসেবে খাজনা দিয়েও আসছি। কিন্তু, সরকারের পক্ষ থেকে আমাদের বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে ক্ষতিপূরণ না দিয়ে ডোবা, গর্ত, খাল এবং বাস্তুভিটা দেখানো হচ্ছে।

এতে কোটি কোটি টাকা ক্ষতি হচ্ছে। অনেকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাড়িঘর হারিয়ে পথে বসেছে। সরকারের কাছে আমাদের জোর দাবি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হিসেবে যেন আমরা যথাযথ ক্ষতিপূরণ পাই।

এ বিষয়ে নড়াইল সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আশরাফুজ্জমান তার বক্তব্যে বলেন আমরা নিয়ম অনুযায়ী ,জমির মালিকদের ক্ষতিপূরণের অর্থ জেলা প্রশাসকের বরাবর পরিশোধ করেছি।

এবিসয়ে (ভারপ্রাপ্ত) জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ফকরুল হাসান বলেন, সংশ্লিষ্ট কাগজপত্র দেখে এবং ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিকদের সাথে আলোচনা করে প্রকৃত প্রাপ্য অর্থ বুঝিয়ে দেওয়া হবে।