নড়াইল জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক এর কিল-ঘুশিতে আহত ইজিবাইক চালক।

নড়াইল প্রতিনিধি: নড়াইল জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ও রূপগঞ্জ বাজারের বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী আলহাজ্ব ওয়াহিদুজ্জামান কর-বাহাদুরের কিল ঘুশিতে আহত হয়েছে শওকত হোসেন (৩১) নামে এক ইজিবাইক চালক। আহত ইজিবাইক চালক সওকত হোসেন কে নড়াইল সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

২৫ জানুয়ারি (মঙ্গলবার) বিকেলে রুপগঞ্জ বাজারে লাইব্রেরীর গলিতে এ ঘটনা ঘটে। শওকত সদর উপজেলার আউড়িয়া গ্রামের আফজাল হোসেন মোল্যার ছেলে। গত রাতে হাসপাতালে জরুরী বিভাগে চিকিৎসাধীন শওকত হোসেন অভিযোগ করে নড়াইল নিউজ ২৪.কমকে বলেন, বিকালে আমি বাংলাদেশ লাইব্রেরীর সামনে ইজিবাইকে ভূষিমাল তোলার জন্য কাজ করছিলাম।

বিপরিত দিক থেকে জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ওয়াহিদুজ্জামান তার ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে আসার সময় আমার ইজিবাইকের সামনে অন্য গাড়ি থাকায় সাইডদিতে দেরি হয়। এসময় গাড়ি থেকে নেমে ওয়াহিদুজ্জামান আমাকে চড়-থাপ্পড়, কিল-ঘুশি মারে। এসময় তাকে খুন যখমের হুমকিও দেয় বলে অভিযোগ করেন।

ইজিবাইক সমিতির নেতা ইসমাইল সিকদার গত রাতে বলেন, আমাদের একজন ইজিবাইক চালককে মারপিট করা হয়েছে। তার অপরাধ কি ? কোন অপরাধে তাকে মারা হলো ? আমরা এর বিচার চায়।

ইজিবাইক সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মাছুম জমাদ্দার বলেন, গত রাতে বলেন, আমাদের ইজিবাইক চালককে মেরে বাহাদুরি দেখানো কোন ভালো কাজ নয়। আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ওয়াহিদুজ্জামান ইজিবাইক চালককে কিল-ঘুশি মারার অভিযোগ অস্বিকার করে বলেন, আউড়িয়ার কিছু লোকজন সব সময় আমাদের বিপক্ষে। রাজনৈতিক ভাবে পেছন থেকে ইন্ধন দিয়ে থাকতে পারে বলেও দাবি করেন তিনি। তবে ওই রাস্তাদিয়ে আসার সময় ইজিবাইক চালকে সাইড দিতে বলার কথা স্বিকার করেন।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শওকত কবির এর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন,এবিসয়ে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত্র সাপেক্ষে আমরা আইগত ব্যাবস্থা গ্রহন করবো।