নারী দিয়ে প্রেমের ফাঁদ, বাসায় গেলেই আসল রূপ

আব্দুল্লাহ আল মামুন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ: চাঁপাইনবাবগঞ্জে এখন অহরহই নারী দিয়ে পাতা হচ্ছে ফাঁদ। সক্রিয় রয়েছে বেশকিছু চক্র। এসব চক্রের নারী সদস্যরা কখনও প্রেমের ফাঁদে ফেলে কখনও সময় কাটানোর নামে টার্গেট করা ব্যক্তিকে বাসায় ডাকছেন। তারপর বাসায় গেলেই দেখানো হচ্ছে তাদের আসল রূপ। ‘ব্ল্যাকমেইল’ করে হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছে টাকা। এ চক্রে রয়েছে রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় থাকা কিছু চিহ্নিত অপরাধী ও কথিত সাংবাদিক। রোববার এমন নারীচক্রের ফাঁদে পড়েন এক ব্যক্তি। বাসায় প্রবেশ করার সঙ্গে সঙ্গে ঢুকে পড়ে এক কথিত সাংবাদিক । নারীর সঙ্গে বসিয়ে আপত্তিকর অবস্থায় ছবি তুলে ও ভিডিও ধারন করে। এরপরে দাবি করে মুক্তিপন। এ ঘটনায় রাতেই দুই নারী, এক কথিত সাংবাদিকসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। শহরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার পূর্ব জাহাঙ্গীর পাড়ার আজাহার আলীর মেয়ে মোসাঃ নাসরিন বেগম লিজা (৩৩), চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার মসজিদপাড়ার মৃত মোয়াজ্জেম হোসেনের ছেলে মাসুদ রানা (৩৪), একই গ্রামের মৃত আব্দুস সামাদের ছেলে একাধিক মামলার আসামী মো. রনি ওরফে ধাপা রনি (৩৮), দ্বারিয়াপুরের মৃত গোলাম রাব্বানীর ছেলে কথিক সাংবাদিক আব্দুর রহিম (২৮) ও সদর উপজেলার রামচন্দ্রপুরহাটের মো. নাইমুল হকের মেয়ে মোসাঃ রিনা বেগম ওরফে সুরাইয়া খাতুন (২৮)।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে পুলিশ জানায়, দীর্ঘ দিন ধরে তারা শহরে এমন কাজ করে আসছে। এমনকি কথিত সাংবাদিক আব্দুর রহিম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হওয়ার পর জোরপূর্বক আপত্তিকর ভিডিও ধারণ করতেন। এগুলো বিভিন্ন গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে টাকা আদায় করতেন।

পুলিশ আরও জানায়, ওই চক্রের কাছ থেকে একটি ভুয়া সাংবাদিকের আইডি কার্ড ও ৯টি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে। এছাড়া মুক্তিপণের টাকাসহ ভুক্তভোগীদের উদ্ধার করেছে ডিবি পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে সদর মডেল থানায় মামলা হয়েছে।