নড়াইল লোহাগড়া উপজেলা নির্বাচন কমিশন এর বিরুদ্ধে বানিজ্যের অভিযোগ

সাজ্জাদ তুহিন নড়াইল প্রতিনিধিঃ নড়াইল লোহাগড়া উপজেলা নির্বাচন কমিশন ও প্রি জাই ডিং কর্মকর্তা কামরুজ্জামানের বিরুদ্ধে ঘুষ দূর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গিয়াছে।
জানা গেছে, গত ২৬ ডিসেম্বর নড়াইল লোহাগড়া উপজেলার ১২ টি ইউনিয়ন পরিষদে ৫ম ধাপের নির্বাচনে ১২ নং কাশিপুর ইউনিয়নের সংরক্ষিত মহিলা আসনে ১,২,৩,৪ টি ওয়ার্ড নিয়ে প্রতিনিধি নির্বাচিত হওয়ার কথা থাকলেও বাস্তবে তা করা হয়নি।
সেখানের দায়িক্ত প্রাপ্ত প্রিজাইডিং অফিসার কামারুজ্জামান প্রতিপক্ষের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়ে ৪নং ওয়ার্ড কে বাদ রেখে ১,২,৩ ওয়ার্ড যোগ করে (তালগাছ প্রতীক) প্রার্থীকে বিজয়ী করে সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর হিসাবে রেজাল্ট শীট দিয়ে দেন।
শুধু তাই নয়, রীতিমত ওই প্রার্থীকে বলেন, তোমার ওয়ার্ড হলো ১,২,ও ৩। তাই ৪ নং ওয়ার্ডের জন্য তোমার কোন এজেন্ট প্রয়োজন নাই। কিন্তু পরে আবার একই ওয়ার্ডে ৪ নং ওয়ার্ড কে যুক্ত করে অন্য আর একজন (সূর্য মুখী ফুল) প্রার্থীকে বিজয়ী করে রেজাল্ট শীটে ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় ঘটে যেতে পারে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ।
তাই এলাকার সাধারণ ভোটারদের দাবি জেলা প্রশাসক ও জেলা নির্বাচন কমিশন কতৃপক্ষ বিসয়টি তদন্ত্র সাপেক্ষ দায়িক্ত প্রাপ্ত লোহাগড়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহনের মাধ্যমে পূনরায় ১২ নং কাশিপুর ইউনিয়নে ১,২,৩,৪ সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর নির্বাচন দিয়ে এলাকায় শান্তি শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে ও রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ বন্ধ করতে আসু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন এলাকা বাঁশি।