দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে মুক্তিযোদ্ধাদের অবদান চিরস্মরণীয়- সংসদ নজরুল

চন্দনাইশ প্রতিনিধি চট্টগ্রামঃ চট্টগ্রাম-১৪ আসনে সংসদ সদস্য আলহজ্ব নজরুল ইসলাম চৌধুরী বলেছেন,দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে মুক্তিযোদ্ধাদের অবদান চিরস্মরণীয়। সেদিন মুক্তিযোদ্ধারা নিজের জীবন বাজি রেখে যুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেছিলেন বলেই আজকের বাংলাদেশ বিশ্বে সমাদৃত হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা বাস্তবায়নে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে। তারই ফসল হিসেবে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরিত হয়েছে। আগামী ২০৪১ সালে উন্নত রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি পাবে। বর্তমান সরকারের উন্নয়ন দৃশ্যমান। পদ্মা সেতু, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রেললাইন, কর্ণফুলী নদীর তলদেশে বঙ্গবন্ধু টার্নেল,দেশের ব্যস্ততম এলাকায় ফ্লাইওভারের মাধ্যমে যানবাহন চলাচলের সুযোগ সুবিধার পাশাপাশি মেট্রো ট্রেন চালুর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। এসকল উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে দেশ স্বাধীন হওয়ার কারণে আর এই স্বাধীনতায় অবদান রেখেছেন মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন শহীদ ও মুক্তিযোদ্ধারা।

২৪ ডিসেম্বর শুক্রবার সন্ধায় দোহাজারী পৌরসভা চত্বরে দোহাজারী পৌরসভা আ’লীগের উদ্যোগে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে আলোচনা সভা,মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা ও স্বাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। দোহাজারী পৌরসভা আ’লীগের সভাপতি আবদুল শুক্কুরের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম-১৪ আসনে সংসদ সদস্য আলহজ্ব নজরুল ইসলাম চৌধুরী। প্রধান বক্তা ছিলেন উপজেলা আ’লীগের সভাপতি মো.জাহিদুল ইসলাম জাহাঙ্গীর,সাধারণ সম্পাদক আবু আহমেদ চৌধুরী জুনু। দোহাজারী আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক বশির উদ্দীন মুরাদের সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশ নেন মুক্তিযোদ্ধা জাফর আলী হিরু,থানা অফিসার ইনচার্জ নাসির উদ্দিন সরকার, দোহাজারী হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ সিরাজুল ইসলাম,মুক্তিযোদ্ধা যথাক্রমে ইসলাম খান,অনিল বড়ুয়া, সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান বেগ,কৃষকলীগ নেতা নবাব আলী,কামাল হোসেন জনি, সাবেক মেম্বার শাহ আলম, জামাল উদ্দীন,যুবলীগ নেতা এরশাদুর রহমান,আসকর খান বাবু,শওকত খান,হেলাল মাহামুদ,কামরুল হাসান মিন্টু, এসএম রবিন,আবদুল মজিদ মিটু প্রমুখ। আলোচনা শেষে মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।