দক্ষিণ কোরিয়া থেকে চট্টগ্রাম বন্দরে এলো রেলের ১০ ইঞ্জিন

জাহাঙ্গীর আলম চট্টগ্রাম: দক্ষিণ কোরিয়ার হুন্দাই রোটেনের কাছ থেকে ১০টি ইঞ্জিন এনে সমালোচনার মুখে পড়েছিল রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। আমদানি করেই ১ বছর ফেলে রেখেছিল ইঞ্জিনগুলো।
ইতোমধ্যে সেখান থেকে ৩টি ইঞ্জিন অকেজো হয়ে গেছে। আরও ১০টি নতুন ইঞ্জিন (লোকোমোটিভ) চট্টগ্রাম বন্দরে এসেছে। ইঞ্জিনগুলো খালাস করে পাহাড়তলী ডিজেল লোকোমোটিভ শপে রাখা হবে।

রোববার (২১ নভেম্বর) সন্ধ্যায় ইঞ্জিন ক্রয়ের প্রজেক্ট ম্যানেজার ও বাংলাদেশ রেলওয়ের জেনারেল ম্যানেজার (প্রজেক্ট) মো. হাসান মুনসুর সংবাদমাধ্যমকে এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, দক্ষিণ কোরিয়ার হুন্দাই রোটেনের ১০টি ইঞ্জিন দেশে এসেছে। ইঞ্জিনগুলো বন্দর থেকে খালাস করার কাজ চলছে। খালাস করে ইঞ্জিনগুলো পাহাড়তলী ডিজেল শপে নিয়ে যাওয়া হবে। এরপর ইঞ্জিনগুলোর টেস্ট ট্রায়াল দেওয়া হবে। টেস্ট ট্রায়ালের ১৫ থেকে ২০ দিন পর ইঞ্জিনগুলো রেলে যুক্ত করা হবে। ইঞ্জিনগুলো ৩ হাজার সিরিয়ালের।

কোরিয়া থেকে মোট ২০টি ইঞ্জিন আনার চুক্তি হয়েছিল। এর মধ্যে আগেই ১০টি ইঞ্জিন এসেছে। আর আজ বাকি ১০টি ইঞ্জিন এসে পৌঁছাল। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছে, এই ইঞ্জিনগুলো বাংলাদেশ রেলওয়েতে যুক্ত হলে রেলওয়ে পরিচালনায় আরও গতি পাবে।

কোরিয়া থেকে আমদানি করা এসব ইঞ্জিন যাত্রীবাহী ট্রেন ছাড়াও পণ্যবাহী ট্রেনে যুক্ত করা হবে। ফলে রেলওয়ের কর্মকর্তারা আশা করছেন পণ্যবাহী ট্রেন থেকে আগের চেয়ে দ্বিগুণ রাজস্ব আয় হবে।