থিয়েটার শো’র সাহায্যে নারী নির্যাতন ও বাল্য বিবাহ সম্পর্কে  সচেতনতা বাড়াচ্ছে জাগোনারী

কে এম রিয়াজুল ইসলাম,তালতলী(বরগুনা)প্রতিনিধিঃ বিনোদন  মানুষকে সচেতন হওয়ার জন্য নানা ম্যাসেজ দেয়। আর সেই লক্ষ্যে বরগুনা জেলার তালতলী উপজেলায় সোনাকাটা ইউনিয়নে লাউপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে ২৬ ডিসেম্বর
জাগোনারীর বাস্তবায়নে “মানুষের জন্য ফাউন্ডেশ”  এর সহযোগিতায় “সেইফ স্পেস প্রকল্প”
নারী নির্যাতন,বাল্যবিয়ে, যৌতুক প্রথা, শিশু শ্রম, শিশু নির্যাতন কখনো বা হাত ধোয়া, শিশু নির্যাতনের শিকার হলে শিশুদের কীভাবে নিজেকে রক্ষা করবে তার কৌশলসহ নানা বিষয়ে থিয়েটার শো করে সচেতন করে তুলছে গ্রামের মানুষকে।

অনুষ্ঠিত শো’তে সভাপতিত্ব করেন মুক্তি যোদ্ধা মোঃসত্তার ফরাজি, প্রধান অতিথি ছিলেন ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোঃসুলতান ফরাজি। বিশেষ অতিথি ছিলেন সেইফ স্পেস প্রোজেক্ট কো-অর্ডিনেটর রাবেয়া মুন্নী।

উপস্থিত ছিলেন তালতলী রিপোর্টার্স ইউনিটির প্রতিষ্ঠা সভাপতি ও সিনিয়র সহসভাপতি তালতলী সাংবাদিক ফোরাম,  কে এম রিয়াজুল ইসলাম রাজু (দৈনিক আমার সময়)।
আরো উপস্থিত ছিলেন জাগোনারীর কর্মীবৃন্দ ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

থিয়েটার শো দেখতে আসা দর্শকেরা জানান, এখানে দেখতে এসে যেমন বিনোদন পেলাম তেমনি সচেতনও হলাম। আগে ১৮ বছরের আগে মেয়ে বিয়ে দিলে কিছু বলতাম না কিন্তু এখন থেকে প্রতিরোধ গড়ে তুলব। কারণ বাল্যবিয়ে ক্ষতিকর। একটা চারাগাছ থেকে যেমন ভালো ফল আশা করা যায় না তেমনি অল্প বয়সী মেয়ের থেকে সুস্থ সন্তান আশা করা যায় না। আমরা এখন থেকে ছেলেদের ২১ ও মেয়েদের কমপক্ষে ১৮ না হতে বিয়ে দেব না। যৌতুক প্রথা, শিশু শ্রম, শিশু নির্যাতন, হাত ধোয়াসহ নানা বিষয়ে সচেতন হয়েছি আমরা। আগের মতো এখন আর ভুল করব না। কেউ করলে তাকে বাধা দেব।

স্কুল শিক্ষিকা মাহফুজা জানান, আগে দেখতাম গ্রামের মেয়েরা ক্লাস পঞ্চম বা অষ্টম শ্রেণিতে পড়া অবস্থায় ঝড়ে পড়ে যেত। আর তাদের ঝড়ে পড়ার মূল কারণ বাল্যবিবাহ।জাগোনারীর সেইফ স্পেস প্রকল্পের সাহায্যে গ্রামের মানুষ এখন সচেতন হচ্ছে। তারা এখন আর তাদের মেয়েদের অল্প বয়সে বিয়ে দিচ্ছে না আগের মতো।

থিয়েটার শো’তো অভিনয় করা শিল্পীরা বলেছে, থিয়েটার শো’টি এলাকার শতাধিক নারী, পুরুষ, কিশোর-কিশোরী উপভোগ করেন। এর মাধ্যমে সমাজের অসঙ্গতির কথা তুলে ধরে সচেতন করার কাজ করছি আমরা। মানুষে আমাদের সাহায্যে তাদের ভুলগুলো বুঝে সচেতন হচ্ছে, এতে আমাদের ভালোই লাগে।

জাগোনারীর রিসোর্স মোবিলাইজেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন পরিচালক ডিউক ইবনে আমিন বলেন, আমাদের থিয়েটার শো’র সাহায্যে মানুষ সচেতন হচ্ছে। আমাদের উদ্দেশ্য সফল হচ্ছে। সমাজের বিভিন্ন কুসস্কার দূর করতে জাগোনারীর বড় ভূমিকা পালন করে আসছে এবং অব্যাহত থাকবে। তারই ধারাবাহিকতায় উপকূলের মানুষদের বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে এই থিয়েটার শো পরিবেশন করা।