টিকা দেওয়া শেষ হবে ৩১ জানুয়ারির মধ্যে: শিক্ষামন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক: যেসব শিক্ষার্থীরা এখন পর্যন্ত এক ডোজ টিকা নেননি তারা আপাতত বিদ্যালয়ে যেতে পারবেন না। তারা অনলাইনে ও টিভিতে ক্লাস করবেন বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। একই সঙ্গে তিনি বলেন, ৩১ জানুয়ারির মধ্যে সারাদেশে ১২ থেকে ১৮ বছর বয়সী সকল শিক্ষার্থীকে টিকার আওতায় নিয়ে আসা হবে।

সোমবার (১০জানুয়ারি) সচিবালয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী এসব কথা বলেন। এর আগে রবিবার রাতে কোভিড-১৯ বিষয়ক কারিগরি কমিটির সঙ্গে বৈঠকে নেওয়া সিদ্ধান্তগুলো জানাতে মন্ত্রী এ সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করেন।

শিক্ষার্থীরা নিজেদের পরিচয়পত্র দেখালেই টিকা দিতে পারবেন। বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের তালিকা টিকা কেন্দ্রে নিয়ে যাচ্ছেন। সুতরাং টিকা দেওয়ার ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের আর কোনো সমস্যা থাকবে না।

শিক্ষামন্ত্রী জানান, সারাদেশে মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১ কোটি ১৬ লাখ ২৩ হাজার ৩২২ জন। এর মধ্যে এখন পর্যন্ত শতকরা ৩৫ শতাংশ শিক্ষার্থী টিকা গ্রহণ করেছেন।

প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে ৪৪ লাখ শিক্ষার্থীকে। দ্বিতীয় ডোজ টিকা থেকে পেয়েছেন ৪ লাখ ১৯ হাজার ৫৫৪ জন শিক্ষার্থী। ৭৫ লাখ ৫৪ হাজার ৬০৬ জন শিক্ষার্থী এখনও প্রথম ডোজ টিকা দেওয়ার বাকি।

সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আগামী ১৫ জানুয়ারি ৩৯৭টি উপজেলায়, ১৭ জানুয়ারি তিনটি উপজেলায়, ২০ জানুয়ারি ৫৬টি উপজেলায়, ২২ জানুয়ারি ১৫টি উপজেলায়, ২৫ জানুয়ারি ৩৫টি ও ৩১ জানুয়ারির মধ্যে ১১টি উপজেলায় শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া সম্পন্ন হবে।

এসময় দীপু মনি আরও জানান, আমাদের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া শেষ হয়েছে। শুধু জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ও ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এখনও শতভাগ টিকা নেননি। আমরা এই তিন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আগামীকাল বসব। শিক্ষার্থীদের জন্য দ্রুত স্টিক আনার বিষয়ে নির্দেশনা দেওয়া হবে।