টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবে জাফর-মওলা প্যানেল বিজয়ী

আলমগীর হোসেন, টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি : টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের কার্যনির্বাহী পরিষদের নির্বাচনে সভাপতি পদে এ্যাডভোকেট জাফর জাফর আহমেদ (যুগান্তর), সাধারণ সম্পাদক পদে কাজী জাকেরুল মওলা (আরটিভি) প্যানেলের বিজয়ী হয়েছে।

শুক্রবার (১৭ ডিসেম্বর)অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বিজয়ী অন্যান্যরা হলেন, সহ-সভাপতি এম এ ছাত্তার উকিল (মৌবাজার) ও একরামুল হক খান তুহিন (মাছরাঙা টিভি), যুগ্ম সম্পাদক মো. নাসির উদ্দিন (বাংলাদেশ প্রতিদিন) ও ইফতেখারুল অনুপম (জনকণ্ঠ), ক্রীড়া সম্পাদক খন্দকার মাসুদুল আলম (মজলুমের কণ্ঠ), সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক কাজী তাজ উদ্দিন রিপন (একুশে টিভি), দপ্তর ও পাঠাগার সম্পাদক অরণ্য ইমতিয়াজ (কালেরকণ্ঠ),কোষাধ্যক্ষ পদে আব্দুর রহিম(সমকাল)কার্যনির্বাহীর সদস্যরা হলেন, ড. মো. কামরুজ্জামান (নিউনেশন), শামীম আলম মামুন (যমুনা টিভি), মামুনুর রহমান মিয়া (ইন্ডিপেনডেন্ট টিভি), কাজী হেমায়েত হোসেন হিমু (সময় তরঙ্গ) ও সাহাবউদ্দিন মানিক (দি ফিনাশিয়াল এক্সপ্রেস)।

নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বি করেন কাজী জাকেরুল মওলা (আরটিভি) ও মহব্বত হোসেন (এনটিভি)। এতে ৩৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন কাজী জাকেরুল মওলা (আরটিভি) আর মহব্বত হোসেন পেয়েছেন ২১ ভোট। যুগ্ম সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন মো. নাসির উদ্দিন (বাংলাদেশ প্রতিদিন), ইফতেখারুল অনুপম (জনকণ্ঠ) ও মহিউদ্দিন সুমন (জিটিভি)। এ উভয়ে ৩৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন মো. নাসির উদ্দিন (বাংলাদেশ প্রতিদিন) ও ইফতেখারুল অনুপম (জনকণ্ঠ)। সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে ৩৩ ভোট পেয়ে বিজয় হয়েছেন কাজী তাজ উদ্দিন রিপন (একুশে টিভি)।

তার প্রতিদ্বন্দ্বি শফিকুজ্জামান খান মোস্তফা পেয়েছেন ২৩ ভোট। এছাড়াও কার্যনির্বাহী সদস্য পদে ৬ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এ পদে ৫জন বিজয়ী হয়েছেন। এর মধ্যে ৪৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন ড. মো. কামরুজ্জামান (নিউনেশন), শামীম আলম মামুন (যমুনা টিভি) পেয়েছেন ৪৯ ভোট, মামুনুর রহমান মিয়া (ইন্ডিপেনডেন্ট টিভি) পেয়েছেন ৪৫ ভোট, কাজী হেমায়েত হোসেন হিমু (সময় তরঙ্গ) পেয়েছেন ৪৩ ভোট আর সাহাবউদ্দিন মানিক (দি ফিনাশিয়াল এক্সপ্রেস) পেয়েছেন ৩৬ ভোট। এর আগে সভাপতি পদে এ্যাডভোকেট জাফর জাফর আহমেদ (যুগান্তর), সহ-সভাপতি এম এ ছাত্তার উকিল (মৌবাজার) ও একরামুল হক খান তুহিন (মাছরাঙা টিভি), ক্রীড়া সম্পাদক খন্দকার মাসুদুল আলম (মজলুমের কণ্ঠ), দপ্তর ও পাঠাগার সম্পাদক অরণ্য ইমতিয়াজ (কালেরকণ্ঠ) বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হন।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার ছিলেন মো. হারুন-অর-রশিদ আর কমিশনার পাবলিক প্রসিকিউটর এস আকবর খান ও অধ্যক্ষ আনন্দ মোহন দে।

এর আগে টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবে বিকেল ৩টা থেকে ৫টা পর্যন্ত চলে এর ভোট গ্রহণ। নির্বাচনে ৬৭ টি ভোটের ৬৩ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। এর মধ্যে চারটি ভোট বাতিল করে নির্বাচন কমিশন।