জয়বাংলা,বঙ্গবন্ধু এবং শেখ হাসিনা’র কথা বলবোই –তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক: তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা.মো: মুরাদ হাসান বলেছেন; আমাদের মূল অস্তিত্বে ফিরে যেতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা প্রতিষ্ঠায় ‘৭২ সালের সংবিধানের মূল চারনীতি বহাল রাখার দাবী। ৭২ সালের সংবিধানের মূল নীতিতে ফিরে যেতেই হবে।এর জন্য কথা বলবোই।আমি জয় বাংলা,বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার কথা বলবোই কোনো শক্তি আমাকে দাবায়ে রাখতে পারবেনা। মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে দাবী সাঈদীকে মৃত্যুদন্ড দিয়া তা কার্যকর করা। সাঈদীর আমৃত্যু সাজার বিরুদ্ধে প্রয়াত এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম রিভিউ আবেদন করে গিয়েছেন সেই রিভিউ আবেদন কার্যকর করতে হবে। আমাদের শপথ সাঈদীর ফাসি কার্যকর না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন করে যাবই।

পিরোজপুর জেলায় ১৯৭১ সালে দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী মানবতাবিরোধী অপরাধের মাস্টারমাইন্ড ছিলেন। সাঈদী সরাসরি যুক্ত থেকে গনহত্যা,লুণ্ঠন,নির্যাতনসহ নানা অপকর্মের করেছেন । মুক্তিযুদ্ধকালে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে সাঈদীর আমৃত্যু কারাদন্ডের রায় বাতিল করে মৃত্যুদন্ডের রায় ঘোষণা ও দ্রুত কার্যকর করার দাবি মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের,বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের বলেন ডা.মুরাদ।

আজ (বৃহস্পতিবার) জাতীয় জাদুঘর এর সামনে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চ আয়োজিত স্বাধীনতার সু্বর্ণ জয়ন্তী উদযাপনের আগেই কুখ্যাত যুদ্ধাপরাধী দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর আমৃত্যু কারাদন্ডের রায় বাতিল করে মৃত্যুদন্ডের রায় ঘোষণা ও দ্রুত কার্যকর করার দাবিতে ‘বিক্ষোভ সমাবেশ’এ তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী ড.মুরাদ হাসান বলেন; বাংলার মানুষ যখন মুজিবর্ষ পালন করছে, যখন বিশ্ব অবাক দৃষ্টিতে দেখছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নে পথে এগীয়ে চলছে বাংলাদেশ, সেই দেশে কোন দেশ বিরোধীর স্থান নেই। ত্রিশ লাখ শহীদের রক্তে রঞ্জিত এই দেশের মাটি,সেই দেশে মানবতাবিরোধী আপরাধীকে জেল খানায় আরাম আয়েশে থাকতে দেয় যায় না।

ডা.মুরাদ আরও বলেন; জাতির পিতা রচিত সংবিধানে অবৈধ্য শাসকদের হাত দিয়ে পরিবর্তন মানা যায় না,মানব না। বক্তব্যে কি বলেছি যার জন্য আমার বক্তব্যের বিরোধীতা করেন। এই বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধাদের, এই দেশ বঙ্গবন্ধুর এই বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রীর দেশ। বাংলার মাটিতে ধর্মের নামে কোনো রাজনীতি হতে দেয়া যায় না।

বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আমিনুল ইসলাম,সভাপতি- বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চে।

অনুষ্ঠাোনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সুপ্রিম কোর্টের আপীল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক; অধ্যাপক ডা: উত্তম কুমার বড়ুয়া,যুগ্ম-মহাসচিব-স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ এবং ভাস্কর শিল্পী রাশা।