জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা না মেনেই চলছে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস

আব্দুল্লাহ আল লোমান,জামালপুর জেলা প্রতিনিধি: জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা অমান্য করেই চলছে জামালপুর জেলার উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসগুলো।এতে করে একদিকে অফিসের লোকদের মধ্যে সৃষ্টি হচ্ছে মতবিরোধ অন্যদিকে সরকারি কাজের গোপনীয়তা রক্ষায় রয়েছে শঙ্কা ।

জানা যায় জেলা প্রশাসক মোর্শেদা জামান স্বাক্ষরিত গত ১৫/১১/২১ তারিখে ৫১.০১.৩৯০.০০০১.১৯.০৩৯.১৬-৩৭৬ নং স্মারকে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার দপ্তরে বাহিরের লোক দ্বারা দাপ্তরিক কাজকর্ম পরিচালনা না করানো প্রসঙ্গে এবং কি তাদের অপসারণ করার নিমিত্তে চিঠি প্রদান করেন।সেই চিঠির তোয়াক্কা না করে জেলার সদর, মেলান্দহ ও দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসগুলোর দাপ্তরিক কাজকর্ম এখনও বাহিরের লোকজন দ্বারাই চলছে।

উপরোক্ত এ তিনটি উপজেলার প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসগুলোতে সরেজমিনে গেলে পূর্বের ন্যায় এখনও বাহিরের লোকজন দিয়ে সরকাররি নথিপত্র আনা নেওয়াসহ দাপ্তরিক কাজকর্ম করানো হচ্ছে।এতে বিধি মোতাবেক নিয়োগ প্রাাপ্ত লোকদের মধ্যে তৈরি হচ্ছে নানাবিধ মতবিরোধ। সেবা গ্রহিতাদের মনেও সৃষ্টি হয়েছে না না প্রশ্ন।

স্থানীয় একাধিক সেবাগ্রহিতাদের সাথে কথা হলে তারা বলেন,পিআইও সাহেব অতিরিক্ত লোকদের বেতন কোথায় থেকে দেন,ভাবেন একবার।আমরা কাজ করতে এলে,এসব লোক বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ভাবে আমাদের নিকট থেকে উৎকোচ নিয়ে,তবেই কাজের সমাপ্তি করে ছাড়েন।আমরাও নিরুপায় হয়ে দিতে বাধ্য হয়। এদের অপসারণ করা খুবই জরুরি।

এ বিষয়ে সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করেও তার মন্তব্য পাওয়া যাইনি। দেওয়ানগঞ্জ ও মেলান্দহ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাদ্বয়ের সাথে কথা হলে,তারা বলেন,চিঠি আমাদের দেয়নি

,উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তাাদের দিয়েছে,তবে আমরা অচিরেই বাহিরের লোকদের সরানো ব্যবস্থা নিবো।জেলা প্রশাসক মোর্শেদা জামান বলেন,এই আদেশ বাস্তবায়ন কোন উপজেলায় হচ্ছে না, সেটা আমি অবহিত নয়।তবে আমি তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবো।