জানুয়ারী মাসের মধ্যে ১৫ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন দেওয়া হবে -স্বাস্থ্যমন্ত্রী

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি: স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন বলেছেন, এখন করোনা বাংলাদেশে অনেকটা নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। মৃত্যুর সংখ্যা এখন সিঙ্গেল ডিজিটে নেমে এসেছে। সংক্রমনের হারও কমে এসেছে। প্রধান মন্ত্রীর
শেখ হাসিনার গাইড লাইনে আমাদের চেস্টায় দেশের অবস্থা ভালো আছে। যাদের ভ্যাকসিন দেওয়া কথা ছিলো তাদের অনেকই ভ্যাকসিন পেয়ে গেছেন। আমরা ৯ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন দিয়ে ফেলেছি। আগামী জানুয়ারীর মধ্যে আশার করা যায় আরো ৬ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। মোট ১৫ কোটি ভ্যাকসিন দেওয়া হলে দেশের সাড়ে সাত কোটি মানুষ দুই ডোজ করে ভ্যাকসিন পেয়ে যাবেন। শনিবার বিকেলে মানিকগঞ্জ শহীদ মিরাজ তপন স্টেডিয়ামে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রিমিয়ার ডিভিশন জেলা ফুটবল লীগের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন এসব কথা বলেন। জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি ও জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল লতিফের সভাপতিত্বে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রিমিয়ার ডিভিশন জেলা ফুটবললীগের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ গোলাম আজাদ খান, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সুদেব সাহা প্রমূখ। ফুটবল লীগের মোট ৮টি দল অংশ নিচ্ছে। উদ্বোধনী খেলায় পল্লী মঙ্গল সমিতি ৩-০ গোলে হরিরামপুর সাকুচিয়া ক্লাবকে পরাজিত করেন। স্বাস্থ্য মন্ত্রী আরো বলেন, দেশে মোট ১৩ কোটি মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। এর মধ্যে এক কোটি মানুষ দেশের বাইরে রয়েছে। ১২ কোটি মানুষ টিকার আওতায় নিয়ে আসা হবে। জানুয়ারীর মাসের মধ্যে সাড়ে সাত কোটি মানুষকে দুই ডোজ করে টিকা দেওয়া হলে বাকী সাড়ে তিন কোটি মানুষকে পর্যায়ক্রমে টিকা দেওয়া হবে। স্বাস্থ্য মন্ত্রী জাহিদ মালেক আরো বলেন, ভ্যাকসিন দেওয়ার কারণে করোনা নিয়ন্ত্রনে আছে বলেই দেশের অর্থনীতির চাকা সচল রয়েছে। যার ফলে

দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হয়েছে, খেলাধুলা সচল হয়েছে, দেশে বিদেশে যাওয়া আসা শুরু হয়েছে। টিকা দেওয়া কারনে মানুষ আর করোনা নিয়ে আগের মতো ভয় পান না। তবে করোনাকে অবহেলা করা যাবে না। করোনা এখনো চলে যায়নি। সকল ক্ষেত্রে স্বাস্থ্য বিধি মেনে
চলতে হবে।