চট্টগ্রাম কাস্টমসে দুই জাপানি গাড়িসহ ৩৩ লট পণ্যের নিলাম আগামী ৩০ ডিসেম্বর

জাহাঙ্গীর আলম ব্যুরো প্রধান চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামে বন্দরে দীর্ঘ সময় পড়ে থাকা দুই জাপানি মাইক্রোবাসসহ বিভিন্ন ধরনের ৩৩ লট পণ্যের নিলাম আগামী ৩০ ডিসেম্বর। নিলাম কেন্দ্র করে ২৩শে ডিসেম্বর থেকে ক্যাটালগ ও দরপত্র বিক্রি শুরু হয়েছে।

নিলাম শাখা সূত্রে জানা গেছে, নিলামে জাপানের তৈরি টয়োটা ব্র্যান্ডের নেভি কালারের মাইক্রোবাসের দাম ধরা হয়েছে ২৩ লাখ ৭৮ হাজার ৭৬২ টাকা। গত সাড়ে তিন মাসের ব্যবধানে গাড়িটি পাঁচবার নিলামে তোলা হয়। এছাড়া জাপানের তৈরি নিশান ব্র্যান্ডের সাদা কালারের মাইক্রোবাসের দাম ধরা হয়েছে ২১ লাখ ৩৩ হাজার ৮৫৬ টাকা। এর আগে নিশান মাইক্রোবাসটি গত সাড়ে তিন মাসে পাঁচবার নিলামে তোলা হয়। গাড়ি ছাড়াও নিলামে তোলা হচ্ছে টেক্সটাইল কেমিক্যাল, ড্রাগন ফল, পেপার ট্যাগ, ল্যাবরেটরি সাপ্লাইস, সেলফ এডহেসিভ টেপ, গার্মেন্টস ফেব্রিঙ, জেন্টস আন্ডারওয়্যার, সালফিউরিক এসিড, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, তৈরি পোশাক, এপ্রন, পলি ব্যাগ, সিরামিক ওয়াল টাইলস, জুতা, গ্যাস্ট স্টোভ পার্টস, গাড়ির টায়ার, ইঞ্জিনের যন্ত্রাংশ, গার্মেন্টস অ্যাকসরিজ, ব্যবহৃত আয়রন, নির্মাণসামগ্রী, গ্লিসারিন, এবং বিভিন্ন রাসায়নিক পদার্থ।

নিলাম শাখা সুত্রে জানা যায়,২৩শে ডিসেম্বর থেকে নিলামের ক্যাটালগ ও দরপত্র বিক্রি শুরু হয়েছে। বিডাররা (নিলামে অংশগ্রহণকারী) অফিস চলাকালীন সময়ে চট্টগ্রাম কাস্টমসের নিলাম শাখা এবং নিলাম পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স কে এম কর্পোরেশনের মাঝিরঘাটের অফিস থেকে আগামী ২৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত ক্যাটালগ ও দরপত্র সংগ্রহ করতে পারবেন। এছাড়া ঢাকার কাকরাইলে অবস্থিত শুল্ক আবগারি ও ভ্যাট কমিশনারেটের যুগ্ম-কমিশনারে (সদর) কার্যালয় থেকেও মূল্য পরিশোধ করে ক্যাটালগ ও দরপত্র সংগ্রহ করতে পারবেন। সংগৃহীত দরপত্র আগামী ২৯ ডিসেম্বর বেলা ২টার মধ্যে জমা দেয়া যাবে চট্টগ্রাম কাস্টমসের রাজস্ব কর্মকর্তার (প্রশাসন) কার্যালয়ে, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ও ঢাকার কাকরাইলে অবস্থিত শুল্ক আবগরী ও ভ্যাট কমিশনারেটের যুগ্ম-কমিশনারের (সদর) কার্যালয়ে। পরবর্তীতে ৩০ ডিসেম্বর বেলা আড়াইটায় বিডারদের উপস্থিতিতে দরপত্রের বাঙ খোলা হবে। নিলাম সম্পন্ন হওয়ার পর সর্বোচ্চ দরদাতাদের অনূকুলে পণ্য বিক্রির অনুমোদন দিবেন নিলাম কমিটির সদস্যরা। নিলামে অংশগ্রহণ করতে প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে দরপত্রের সাথে হালনাগাদ করা ট্রেড লাইসেন্স, ভ্যাট রেজিস্ট্রেশন সনদ, টিআইএন সার্টিফিকেটের কপি দাখিল করতে হবে। ব্যক্তির ক্ষেত্রে জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি এবং হালনাগাদ টিআইএন সার্টিফিকেটের কপি দাখিল করতে হবে। এছাড়া ক্যাটালগে উল্লেখিত শর্ত পূরণ করে নিলামে অংশ নেয়া যাবে।

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের উপ-কমিশনার (নিলাম শাখা) আলী রেজা হায়দার আমার সময়কে বলেন, চট্টগ্রাম বন্দরের জট নিরসনের প্রতি মাসের একাধিক নিলাম অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সেই ধারাবাহিকতায় আগামী ৩০ ডিসেম্বর জাপানি গাড়িসহ ৩৩ লট পণ্য নিলামে তোলা হচ্ছে।