গাজীপুর মেয়রের বাসায় সংবাদকর্মীর উপচেপড়া ভিড়, বাসভবন নেতাকর্মী শুন্য

"২২ সেপ্টেম্বর ৪ মি মিনিটের একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়।এতে দেখা
যায়,ঘরোয়া আলোচনায় মেয়র তার ঘনিষ্ঠ কারও সঙ্গে কথা বলছেন।সেখানে
তার কথায় অনেক বিষয় নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য উঠে আসে। এতে গাজীপুর 
আওয়ামীলীগের একটি অংশ মেয়রকে দল থেকে বহিষ্কারের দাবি তোলে।"
মাজহারুর ইসলাম রবিন,গাজীপুর প্রতিনিধি: গাজীপুর সিটি করপোরেশন মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে আজীবন আওয়ামী লীগে থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এদিকে, বহিষ্কারের ঘোষণা আসায় সকাল থেকে মেয়রের বাসায় সংবাদকর্মীদের ভিড় দেখা গেছে। তবে প্রতিদিন মেয়রের বাসায় বিভিন্ন নেতাকর্মীর ভিড় থাকলেও আজ দেখা যাচ্ছে না।শনিবার (২০ নভেম্বর) সকালে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গাজীপুর মেয়র তার বাসভবনেই রয়েছেন। আজ সকাল ১১টার দিকে সাংবাদিকদের সঙ্গে তার মতবিনিময় করার কথা রয়েছে। এজন্য গাজীপুর ও ঢাকা থেকে বিভিন্ন মিডিয়ার সাংবাদিকেরা এসেছেন। তবে মেয়রের বাসায় প্রবেশে কোনো কড়াকড়ি আরোপ নেই। আগের মতো তার ব্যক্তিগত রক্ষীও নেই। যে যার মতো প্রবেশ ও প্রস্থান করছেন।
তবে, সকাল থেকে কিছু উৎসুক মানুষকে মেয়রের বাসার সামনে ভিড় করতে দেখা গেছে। এ নিয়ে গাজীপুরে উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে। গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত উল্লাহ খান বলেন, ‘মেয়রের বিষয়ে দল যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তাতে আমরা গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগ সন্তুষ্ট। এখন আমরা চাই, তিনি যেহেতু দলীয় প্রতীকে মেয়র হয়েছেন, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে তার মেয়র পদ যেন না থাকে। সে জন্য দল থেকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এদিকে, মেয়রকে আজীবন দল থেকে বহিষ্কারের ঘোষণা পর থেকে গাজীপুরের বিভিন্ন এলাকায়  আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করতে দেখা গেছে। মেয়রের এই সিদ্ধান্তে খুশি আওয়ামী লীগের একাংশ। উল্লেখ্য, গত ২২ সেপ্টেম্বর ৪ মি মিনিটের একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এতে দেখা যায়, ঘরোয়া আলোচনায় মেয়র তার ঘনিষ্ঠ কারও সঙ্গে কথা বলছেন। সেখানে তার কথায় অনেক বিষয় নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য উঠে আসে। এতে গাজীপুর আওয়ামী লীগের একটি অংশ মেয়রকে দল থেকে বহিষ্কারের দাবি তোলে। তারই প্রেক্ষিতে শুক্রবার (১৯ নভেম্বর) সন্ধ‌্যা ৬টা ৪৫ মিনিটে গণভবনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্যদের নিয়ে আলোচনা শেষে গাজীপুর সিটি মেয়রকে দল থেকে আজীবন বহিষ্কারের ঘোষণা দেওয়া হয়।