কেরানীগঞ্জে সন্ত্রাসীদের হামলায় মুক্তিযোদ্ধা নিহত 

এনামুল হাসান: ঢাকার কেরানীগঞ্জে সন্ত্রাসীদের ছুড়িকাঘাতে আলহাজ্ব গাজী শহীদুল্লাহ(৭২) নামে এক বীর মুক্তিযোদ্ধা নিহত হয়েছেন। এসময় তার সাথে থাকা আরো চারজন গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। নিহত মুক্তিযোদ্ধা গাজী শহীদুল্লাহ দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানাধীন আব্দুল্লাহপুর করের গাঁও এলাকার মৃত গাজী ফজের আলীর ছেলে।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, তিনমাস পূর্বে ইন্টারনেটের বিল পরিশোধ নিয়ে গাজী শহীদুল্লাহর নাতি মোঃ নাদিমের সাথে একই এলাকার মালিভিটার বাসিন্দা মমিন গংদের কথা-কাটাকাটি হয়। যার যেরে গত ১৭ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় আব্দুল্লাহপুর স্বদেশ হাসপাতালের সামনে গাজী শহীদুল্লাহ, আবিদ(১৬), সাইফুল(২৮), মাসুদ(৩৫) ও আসাদুর(৫৫)কে সন্ত্রাসী মমিন(২৬), শামীম(৩৫), রিপন(৩৫), মিশাল(২৮), তাইজ উদ্দিন(৪৫) ও বাতেন(৩৮) সহ অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জন দেশীয় অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। পরে আশেপাশের লোকজন তাদের আর্তচিৎকারে আহত অবস্থায়  উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য শহীদুল্লাহ্ কে স্বদেশ হাসপাতালে ও বাকিদের রাজধানীর অন্যান্য হাসপাতালে প্রেরণ করেন। স্বদেশ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শহীদুল্লাহর অবস্থার অবনতি হলে ২০ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ১১টায় উন্নত চিকিৎসার জন্য এম্বুলেন্স যোগে আজগর আলী হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান।
নিহতের নাতি মোঃ নাদিম বলেন, গত শুক্রবার (১৭ ডিসেম্বর) আমি স্বদেশ হাসপাতালে রক্ত দিতে গেলে মমিন তার বাহিনী নিয়ে আমার ওপর হামলা চালায়। পরে খবর পেয়ে আমার দাদা শহিদুল্লাহ ও চাচা মাসুমসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ হাসপাতালে আমাকে উদ্ধার করতে এলে তাদেরকেও কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়। পরে হামলার ঘটনায় ১৮ ডিসেম্বর দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় আমরা মামলা দায়ের করি।
এ বিষয়ে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ জানান, ঘটনার পরে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। আসামীদের একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।বাকিদের গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রয়েছে।