কেরানীগঞ্জে প্রেমের ফাঁদে ফেলে কিশোরীকে ধর্ষণ,থানায় মামলা

- প্রতীকী ছবি

এনামুল হাসান: ঢাকার কেরানীগঞ্জে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ও বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক কিশোরী(১৫) কে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার (৯ ফেব্রুয়ারী) ধর্ষিতা ওই কিশোরীর মা বাদী হয়ে কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় ধর্ষক শিখর(২০) এর বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, কেরানীগঞ্জ মডেল থানাধীন রোহিতপুর ইউনিয়নের লাখিরচর গ্রামের শুকুর মিয়ার ছেলে শিখর(২০) প্রেমের ফাঁদে ফেলে ও বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একই গ্রামের স্কুল পড়ুয়া এক কিশোরীকে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে ধর্ষণ করে আসছিলো। সর্বশেষ গত সোমবার (৭ ফেব্রুয়ারী) রাত আটটার দিকে ওই কিশোরীর বসত বাড়ীর পার্শ্ববর্তী একটি ঘরে নিয়ে তাকে পূনরায় ধর্ষন করে।

পরে বিষয়টি জানাজানি হলে নির্যাতনের শিকার ওই কিশোরীর স্বজনরা স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে ছেলের পরিবারকে ঘটনা সম্পর্কে জানান। কিন্তু ছেলের পরিবার বিষয়টিতে কর্নপাত না করে বিভিন্ন  টালবাহানা শুরু করলে কিশোরীর মা বাদী হয়ে কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

এব্যাপারে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মোঃ আবু ছালাম মিয়া বলেন, প্রেমের ফাঁদে ফেলে ১৫ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে থানায় একটি মামলা হয়েছে। আমরা আসামীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছি।

তিনি আরো বলেন, নির্যাতিতা ওই কিশোরীরকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ (মিটফোর্ড) হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।