কেরানীগঞ্জে ঝগড়ার জেড়ে কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা

এনামুল হাসান: ঢাকার কেরানীগঞ্জে চাচাতো বোনের সাথে ঝগড়ার জেড়ে আত্মহত্যা করেছে ফাতেমা(২০) নামের কলেজ পড়ুয়া এক তরুণী। সে কেরানীগঞ্জ গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের ছাত্রী ছিলেন। তার চাচাতো বোনের নাম রেশমা(৩০)।

মঙ্গলবার (১৫ ফেব্রুয়ারী) সকালে কেরানীগঞ্জ মডেল থানাধীন রোহিতপুর ইউনিয়নের মুগারচর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত ফাতেমার পিতার নাম আজিজুল হক। পাঁচ ভাই বোনের মধ্যে ফাতেমা ছিলো দ্বিতীয়। আজিজুল হকের আপন ভাই নূর মোহাম্মদের মেয়ে রেশমা।

নিহত ফাতেমার মা জবেদা বেগম বলেন, রেশমার কারণেই আমার মেয়ে আত্মহত্যা করেছে। রেশমার সাথে প্রায়ই ঝগড়া হতো আমাদের। সামান্য কিছু হলেই আমার মেয়েকে নানা ভাবে বিষিয়ে তুলত রেশমা। আমার কলেজ পড়ুয়া মেয়ের দ্রুত কেন বিয়ে হচ্ছেনা, ছেলে পক্ষ দেখতে এলে তাদের বাসায় কেনো নিয়ে যাওয়া হয়, বড় বোন রেখে ছোট বোনকে বিয়ে কেনো দেয়া হচ্ছে এমন নানা বিষয় নিয়ে মাঝে মধ্যেই খোটা দিতো আমার মেয়েকে। ঝগড়ার দিন (আজ ভোরে) রেশমা অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে ফাতেমাকে। এসময় ফাঁসি দিয়ে তাকে মরতে বলে। ঝগড়ার পরপর আমি বাড়ির বাহিরে গেলে রেশমার অশ্লীল গালাগালিতে অতিষ্ঠ হয়ে নিজ ঘরে গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করে ফাতেমা।

এব্যাপারে রেশমার সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তাকে পাওয়া যায়নি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক রেশমার এক আত্মীয় জানান, এমন ঝামেলা মাঝে মাঝেই হতো। তবে ঝগড়ার কারণে ফাতেমার আত্মহত্যা করা তার ঠিক হয়নি। মৃত্যুর খবর শুনে রেশমাও কেঁদে বেহুশ হয়েছে।

এব্যাপারে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) আবু ছালাম মিয়া জানান, ব্যাপারটি খুবই দুঃখজনক। সুরতহাল প্রতিবেদন শেষে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ( মিটফোর্ড) হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এব্যাপারে থানায় একটি মামলা পক্রিয়াধীন রয়েছে।