কক্সবাজার ওয়ালটন রাখাইন ক্রীড়া উৎসবের উদ্বোধন

দিদারুল আলম সিকদার, কক্সবাজার জেলা প্রতিনিধিঃ ওয়ালটন রাখাইন ক্রীড়া উৎসব’র উদ্বোধন করছেন অতিথিবৃন্দ ক্রীড়াবান্ধব প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায় ও কক্সবাজার রাখাইন ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে মাসব্যাপী শুরু হতে যাওয়া ‘ওয়ালটন প্রথম রাখাইন ক্রীড়া উৎসব-২০২২’ এর উদ্বোধন হয়েছে।

রোববার (৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১টায় কক্সবাজার বাহারছড়া গোল চত্বর মাঠে এ উৎসবের উদ্বোধন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, কক্সবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল।

বিশেষ অতিথি ছিলেন, কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার মিজানুজ্জামান, ওয়ালটন গ্রুপের জ্যেষ্ঠ নির্বাহী পরিচালক (গেমস অ্যান্ড স্পোর্টস, মার্কেটিং) এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার (ডন), কক্সবাজার প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মুজিবুল ইসলাম, ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন, ফুটবল বিষয়ক সম্পাদক হারুন অর রশীদ, কক্সবাজার ক্রীড়া লেখক সমিতির সভাপতি মাহবুবুর রহমান, রেফারীজ অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাসেম প্রমুখ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রাখাইন ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি মং ছেন য়াইন এবং সঞ্চালনা করেন রাখাইন ক্রীড়া উৎসবের চেয়ারম্যান সাংবাদিক এমএ আজিজ রাসেল।

এদিন পুরুষদের ফুটবল ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হয়। উদ্বোধনী ম্যাচে কক্সবাজার রাখাইন ফুটবল ক্লাবকে ৩-১ গোলে হারায় ক্যাং পাড়া ফুটবল ক্লাব। এরপর পর্যায়ক্রমে অন্যান্য ইভেন্টগুলো অনুষ্ঠিত হবে। এবারের আয়োজনে রয়েছে- ক্রিকেট, ফুটবল, রাখাইন নিজস্ব খেলা, ফানুস উত্তোলন, জলকেলি, রাখাইন নৃত্য ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তেব্যে সাইমুম সরওয়ার কমল বলেন, ‘ সমপ্রদায়িক সমপ্রীতি বাড়াতে ধর্মীয় ও রাজনৈতিক শিক্ষা থেকে এই উৎসবে আমি এসেছি। সকল সমপ্রদায়ের খেলাধুলার অধিকার আছে।

রাখাইনদের তরুণদের মনকে উৎফুল্ল ও মাদক থেকে দূরে রাখতে খেলাধুলায় ওয়ালটনের পৃষ্ঠপোষকতা সত্যি প্রশংসনীয়। এ খেলায় ওয়ালটন দেখে আমার মনে হলো আমি দক্ষিণ কোরিয়া কিংবা জাপানের কোনো একটি অংশে আছি। তারা পৃথিবীর ৪১টি দেশে আমাদের পণ্য রপ্তানি করে। এবং ২৫ হাজারেরও বেশি কর্মচারী ওয়ালটনে কর্মরত আছে। এটি একটি গৌরবের বিষয়। আমরা চাইবো খেলাধুলায় পৃষ্ঠপোষকতা দেশের ক্রীড়া অঙ্গনকে আরো এগিয়ে নিয়ে যাবে।’

এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার (ডন) বলেন, ‘রাইখন সমপ্রদায় নিয়ে এই প্রথম ওয়ালটন স্পন্সর করেছে। নৃগোষ্ঠীরা ও যেন খেলাধুলায় পিছিয়ে না থাকে তাই তাদের নিয়ে এই আয়োজন। শুধু ফুটবল ক্রিকেট নয়, এসব পরিচিত খেলা ছাড়াও রাখাইনদের যে নিজস্ব খেলাগুলো আছে সেগুলোকেও প্রধান্য দিতে হবে। মাদক ও অন্যান্য খারাপ প্রবৃত্তি থেকে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের তরুণ-যুবকদের খেলাধুলায় ব্যস্ত রাখতে ওয়ালটন বিভিন্ন খেলায় পৃষ্ঠপোষকতা করছে। প্রতিবছর এ উৎসব আয়োজন করা হবে।’

উৎসবে অংশ নেওয়া দলগুলো হলো- কক্সবাজার রাখাইন ফুটবল ক্লাব, ক্যাংপাড়া রাখাইন ক্রীড়া সংঘ, রাজধানী ফ্রেন্ডস সার্কেল, পশ্চিম বড় বাজার টাইগার্স, রাখাইন ফেসবুক ক্লাব, মহেশখালী বড় রাখাইন পাড়া ক্রিকেট একাদশ, চৌফলদন্ডী ক্রিকেট একাদশ, চৌফলদন্ডী মধ্যম রাখাইন পাড়া ক্রিকেট একাদশ, রেইনবো ওয়ারিয়র্স, বড় বাজার সুপার কিংস ও বড়বাজার রাখাইন চ্যালেঞ্জার্স।

ওয়ালটন- রাখাইন ক্রীড়া উৎসবের সহযোগিতায় রয়েছে ওয়ালটন গ্রুপের জনপ্রিয় ব্র্যান্ড মার্সেল। মিডিয়া পার্টনার হিসেবে আছে এটিএন বাংলা। রেডিও পার্টনার রেডিও টুডে। আর অনলাইন পার্টনার দেশের জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল রাইজিংবিডি ডটকম