উল্লাপাড়ার সরিষা মাঠে এখন মৌ খামারীদের ভিড়

উল্লাপাড়া (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় সরিষা মাঠে ফুল ধরার সাথে সাথে শুরু হয়েছে মৌ খামারীদের মধু আহরণের কর্মযজ্ঞ। ইতোমধ্যেই ১শত মৌ খামারী উপজেলার চলনবিল পাড়ের গ্রামগুলোসহ বিভিন্ন এলাকায় মধু সংগ্রহের জন্য মৌ বাক্স ফেলেছে। এবছর এখানে মৌ খামারীদর সংখ্যা অনেক বেশি। উপজেলা কৃষি বিভাগের হিসেবে এবছর উল্লাপাড়ায় অন্তত ১৯০ মেট্রিক টন মধু উৎপাদিত হবে।

উল্লাপাড়ার আশার আলো মৌ খামারে গিয়ে কথা হয় এর মালিক আব্দুর রশিদের সঙ্গে। তিনি জানান, চলনবিল অধ্যষিত আলীগ্রাম মাঠে ৩৫০টি মৌ বাক্স স্থাপন করেছেন। তার মৌ খামারে ৪ জন শ্রমিক কাজ করছেন। আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে এবছর তিনি মধু উৎপাদনে সফল হবেন বলে উল্লেখ করেন।

আব্দুর রশিদ আরো জানান, মধু পাইকারী ২৫০ টাকা কেজি ধরে এবং খুচরা ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকা ধরে বিক্রি করা হচ্ছে। আহরিত মধু দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্রি হচ্ছে।

আশার আলো খামারে কর্মরত শ্রমিক অনার্স পড়–য়া মোঃ শরিফুল ইসলামের সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান, প্রতিবছর মধু সংগ্রহের সময় তিনি মৌ খামারে কাজ করেন। এসময় যে আয় হয় তা দিয়ে তিনি সারাবছর পড়াশোনার কাজে ব্যয় করেন। তিনি আরো জানান, ভবিষ্যতে তিনি নিজেই মৌ খামার স্থাপনের পরিকল্পনা করছেন।

উপজেলা উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা আজমল হক জানান, চলতি রবি মৌসুমে উল্লাপাড়ার ১৪টি ইউনিয়ন ও পৌর সভায় ১৮ হাজার ৭৫০ হেক্টর জমিতে সরিষা চাষ হয়েছে। ইতোমধেই উপজেলার বিভিন্ন সরিষা মাঠে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ১শত মৌ খামারী মধু সংগ্রহের জন্য উল্লাপাড়ায় এসেছে। এদের মৌ বাক্সের সংখ্যা এখন পর্যন্ত ১২ হাজার। আগামী কয়েক দিনে আরও ১৫জন মৌ খামারী উল্লাপাড়ায় আসার প্রস্তাব দিয়েছে। গেলো বছর উল্লাপাড়ার সরিষা মাঠ থেকে ১৭০ মেট্রিক টন মধু সংগ্রহ করে ছিলেন। এবছর এখানে ১৯০ মেট্রিক টন মধু সংগ্রহ করা হবে বলে কৃষি বিভাগের ধারণা। দেশে উপজেলার মধ্যে উল্লাপাড়া উপজেলা সরিষা উৎপাদনে শীর্ষে রয়েছে। ফলে দেশের সবচেয়ে বেশি মধু উল্লাপাড়ায় উৎপাদিত হয়। এখান থেকে দেশের বিভিন্ন ওষুধ কোম্পানী ও বিভিন্ন বাজারে মধু পাঠানো হয়ে থাকে। সরিষা মৌসুমে এখানে অনেক বেকার যুবক সাময়িকভাবে কাজর সুযোগ পান।