উত্তপ্ত সাতকানিয়া ইউপি নির্বাচন

ব্যুরো প্রধান চট্টগ্রাম: ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত সহিংসতার রণক্ষেত্র পরিনত হচ্ছে দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায়। তফসিল ঘোষণা, প্রতীক বরাদ্দ ও প্রচারণার শুরু থেকে দফায় দফায় সহিংসতা ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটছে। মূলত নৌকার প্রার্থী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর মাঝে দিনদুপুরে গুলি বর্ষণের ঘটনাও ঘটে। স্বতন্ত্র ও বিদ্রোহী প্রার্থীর অভিযোগ নৌকার প্রার্থীরা দমন নিপীড়ন ক্ষমতা প্রয়োগ করছে তাদের উপর। ভোট গ্রহণের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই সহিংসতা ও সংঘর্ষের ঘটনা বাড়ছে। এসব ঘটনায় নৌকার প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিস্তর অভিযোগ উঠলেও স্বতন্ত্র ও বিদ্রোহী প্রার্থীরা প্রশাসনের সাড়া পাচ্ছেনা বলে তাদের অভিযোগ।

সুত্রেমতে সপ্তম ধাপে সাতকানিয়া উপজেলার ১৬ইউপি নির্বাচনে ৪নৌকার প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হলেও ১১ইউপিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন।

জানা যায়, কাঞ্চনা, নলুয়া, খাগরিয়া, ধর্মপুর, বাজালিয়া ও সোনাকানিয়া ইউনিয়নে নৌকা ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের পাল্টাপাল্টি হামলা ও গুলাগুলির একাধিক ঘটনা ঘটছে।

গত জুমাবার পথসভা ও গণসংযোগে আমিলাইশ ইউনিয়নের বিদ্রোহী প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান এইচ.এম হানিফ এবং নৌকার প্রার্থী সরওয়ার উদ্দিন চৌধুরীর সমর্থককদের মাঝে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় উভয়ের শিশু সহ অন্তত ২২জন আহত হয়েছে। তার মধ্যে বিদ্রোহী প্রার্থীর এক বৃদ্ধা সমর্থক গুরুতর আহত হয়েছে বলে জানা গেছে। এ বিষয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল জলিল সাংবাদিকদের জানান, আমিলাইশের  ঘটনার বিষয়ে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল নিয়ন্ত্রণ করেছে। এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।