ইডিইউতেই ক্লাস হচ্ছে ফ্লিপড ক্লাসরুমে

 ব্যুরো প্রধান চট্টগ্রাম: ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটি শিক্ষার্থীদের উন্নত শিক্ষা ও দক্ষতায় প্রশিক্ষিত করার লক্ষ্যে নানান সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করেছে। জীবনে উন্নতির পাথেয় সংগ্রহ করতে হয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই। করোনা অতিমারীর প্রকোপে সারাবিশ্বেই শিক্ষাখাতে এক আমূল পরিবর্তন এসেছে। বাংলাদেশে এ পরিবর্তনে নেতৃত্ব দিয়েছে ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটি। বিশ্বের আধুনিকতম প্রযুক্তি ও পাঠদান কৌশল সন্নিবেশিত হয়েছে ইডিইউর ক্লাসরুমে। বাংলাদেশের একমাত্র ইডিইউতেই ফ্লিপড ক্লাসরুম কৌশলে ক্লাস নেওয়া হচ্ছে। তাই, যারা ইডিইউতে উচ্চশিক্ষা অর্জনের সুযোগ পেয়েছে, সামনে তাদের জন্য এক অভিনব অভিজ্ঞতা অপেক্ষা করছে।

ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির (ইডিইউ) বিভিন্ন অনুষদে স্প্রিং ২০২২ সেমিস্টারে ভর্তি হওয়া নবীন শিক্ষার্থীদের ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রামে এ মন্তব্য করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর মুহাম্মদ সিকান্দার খান।

১৩ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার সকাল ১১টা থেকে সারা দিনে ক্যাম্পাস প্রাঙ্গনে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব ইঞ্জিনিয়ারিং, স্কুল অব লিবারেল আর্টস এন্ড সোশ্যাল সায়েন্স এবং স্কুল অব বিজনেসের পৃথক ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠিত হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ভাইস চেয়ারম্যান সাঈদ আল নোমান ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটিতে ভর্তির সুযোগ পাওয়া সকলকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, শিক্ষার্থীদের মাঝে ডোমেইন নলেজ, রিসার্চ আন্ডারস্ট্যান্ডিং, লিডারশিপ, সফট স্কিল, ইমোশনাল ইন্টেলিজেন্স, গ্লোবাল সিটিজেনশিপ- এই গুণগুলো গড়ে তুলছে ইডিইউ। বর্তমান প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বে সাফল্য অর্জনে এসবের বিকল্প নেই।

এতে অতিথি ছিলেন স্কুল অব ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের অ্যাসোসিয়েট ডিন প্রফেসর ড. মো. নাজিম উদ্দিন ও স্কুল অব বিজনেসের অ্যাসোসিয়েট ডিন প্রফেসর ড. মোহাম্মদ রকিবুল কবির ও স্কুল অব লিবারেল আর্টসের অ্যাসোসিয়েট ডিন মুহাম্মদ শহিদুল ইসলাম চৌধুরী।

নবাগত শিক্ষার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে ধারণা দেয়া হয় অনুষ্ঠানে। শিক্ষার্থীদের ইডিইউর শিক্ষাপদ্ধতি ও কোর্সগুলো ছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রয়োজনীয় বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত বর্ণনা দেয়া হয়। এছাড়া শিক্ষার্থীদের সামনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফ্যাকাল্টি মেম্বার ও প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়।