আয়েশা’স বিউটি পার্লারের বিরুদ্ধে ভ্যাট ফাঁকির মামলা

জাহাঙ্গীর আলম: ঢাকা রাজধানীর ওয়ারী ও বনানীতে আয়েশা’স মেকওভার সেলুন এন্ড স্পা এর দুটো পার্লারে অভিযান চালিয়ে ১৮.৯৮ লক্ষ টাকার ভ্যাট ফাঁকির অনিয়ম উদঘাটন করেছে ভ্যাট গোয়েন্দারা।

বনানীর পার্লারে ভ্যাট নিবন্ধন না নিয়েই ব্যবসা করছে প্রতিষ্ঠানটি। ভ্যাট ফাঁকির প্রমাণ পাওয়ায় বিউটি পার্লারে অভিযানটি ১৯ ডিসেম্বর রবিবার পরিচালিত হয়। তদন্তশেষে মামলা দায়ের করা হয় আজ ২১ ডিসেম্বর।

আয়েশা’স মেকওভার সেলুন এন্ড স্পা প্রতিষ্ঠানটি ২৯/১, টিপু সুলতান রোড, ওয়ারী, ঢাকায় অবস্থিত (ভ্যাট নিবন্ধন নং-০০২৪৮২৭১১-০৩০১)।এছাড়া প্রতিষ্ঠানটি আরেকটি শাখা হাউস-২৪, ব্লক-এফ, রোড-৮, বনানী, ঢাকা-য় অবস্থিত হলেও নিবন্ধন না নিয়েই ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে।

একজন গ্রাহকের সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ওপর ভিত্তি করে এই অভিযান পরিচালনা করা হয়।ওই গ্রাহক আয়েশা’স মেকওভার সেলুন এন্ড স্পা থেকে সেবা গ্রহণ করলে তাকে কাঁচা চালানে বিল প্রদান করে।পরে তিনি ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদপ্তরে অভিযোগ দেন।

ভ্যাট গোয়েন্দার উপ-পরিচালক তানভীর আহমেদ এর নেতৃত্বে একটি দল প্রতিষ্ঠানটির বনানী পার্লারে এবং সহকারী পরিচালক জনাব আলমগীর হুসেন এর নেতৃত্বে ওয়ারীর পার্লারে অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানে প্রাপ্ত অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়।

অভিযানের শুরুতে প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিকে প্রতিষ্ঠানের ভ্যাট সংক্রান্ত দলিলাদি উপস্থাপনের জন্য অনুরোধ করা হলে, তিনি ভ্যাট নিবন্ধন নম্বর এবং ভ্যাট সংক্রান্ত কোন দলিলাদি দেখাতে পারেননি।পরবর্তীতে ভ্যাট গোয়েন্দা কর্মকর্তাগণ প্রতিষ্ঠানের প্রাঙ্গনে তল্লাশী করে। প্রতিষ্ঠানের প্রাঙ্গনে প্রাপ্ত ভ্যাট ও বাণিজ্যিক দলিলাদির প্রাথমিক যাচাইয়ে গরমিল এবং ভ্যাট পরিহারের আলামত পাওয়ায় গোয়েন্দা কর্মকর্তাগণ অধিকতর যাচাই/ পরীক্ষার নিমিত্তে ভ্যাট সংক্রান্ত বাণিজ্যিক দলিলাদি জব্দ করে।

তদন্ত অনুসারে, আয়েশা’স মেকওভার সেলুন এন্ড স্পা এর ওয়ারী শাখায় জুলাই/ ২০২০ থেকে ১৯ ডিসেম্বর/২০২১ পর্যন্ত সময়ে ৭৬,৮৮,৬০০ টাকার সেবা প্রদান করে।তবে প্রতিষ্ঠানটি স্থানীয় সুত্রাপুর ভ্যাট সার্কেলে মাসিক রিটার্নের মাধ্যমে মাত্র ৪৩,০০০ টাকা ভ্যাট প্রদান করে।এক্ষেত্রে সেবা কোড- এস-০৩০.০০ মোতাবেক সমুদয় সেবার বিপরীতে ভ্যাট আইন অনুসারে ১১,১০,২৯০ টাকা ভ্যাট ফাঁকি হয়েছে।এই ফাঁকির উপর ভ্যাট আইন অনুসারে মাস ভিত্তিক ২% হারে ১,৫৩,০৩২ টাকা সুদ প্রযোজ্য।

অপরদিকে, আয়েশা’স মেকওভার সেলুন এন্ড স্পা এর বনানী শাখায় নভেম্বর/ ২০২০ থেকে ১৯ ডিসেম্বর/২০২১ পর্যন্ত সময়ে ৩১,৪৭,৮৪০ টাকার সেবা প্রদান করে।তবে প্রতিষ্ঠানটি স্থানীয় গুলশান ভ্যাট সার্কেলে প্রতিষ্ঠানটির নিবন্ধনের কোন তথ্য পাওয়া যায়নি।এক্ষেত্রে সেবা কোড- এস-০৩০.০০ মোতাবেক সমুদয় সেবার বিপরীতে ভ্যাট আইন অনুসারে ৪,১০,৫৮৮ টাকা ভ্যাট ফাঁকি হয়েছে।এই ফাঁকির উপর ভ্যাট আইন অনুসারে মাস ভিত্তিক ২% হারে ৭৮,৫৩৩ টাকা সুদ প্রযোজ্য।

এছাড়া, আয়েশা’স মেকওভার সেলুন এন্ড স্পা এর বনানী শাখায় নভেম্বর/ ২০২০ থেকে ১৯ ডিসেম্বর/২০২১ পর্যন্ত সময়ে স্থান স্থাপনা বাবদ ১০,২০,০০০ টাকা প্রদান করে যার বিপরীতে ১,৩৩,০৪৩ টাকা ভ্যাট ফাঁকি হয়েছে।এই ফাঁকির উপরও ভ্যাট আইন অনুসারে মাস ভিত্তিক ২% হারে ১২,১৯৬ টাকা সুদ প্রযোজ্য।

বর্ণিত তদন্ত মেয়াদে প্রতিষ্ঠানটির সর্বমোট অপরিশোধিত ভ্যাটের পরিমাণ ১৬,৫৩,৯২১ টাকা এবং সুদ বাবদ ২,৪৩,৭৬১ টাকাসহ ১৮,৯৭,৬৮২ টাকা পরিহারের তথ্য উদঘাটিত হয়।

এই রাজস্ব পরিহারের দায়ে ভ্যাট আইন অনুসারে  ২১ ডিসেম্বর পৃথক দুটো মামলা করা হয়েছে।

তদন্তে ওয়ারীর পার্লারের বিরুদ্ধে পরিহারকৃত ভ্যাট আদায়ের আইনানুগ পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহণের জন্য মামলার প্রতিবেদনটি ঢাকা পূর্ব ভ্যাট কমিশনারেটে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্যদিকে, ভ্যাট নিবন্ধন ব্যতিরেকে ব্যবসা পরিচালনা করায় এবং ভ্যাট ফাঁকির সাথে জড়িত হওয়ায় বনানীর পার্লারের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য ঢাকা উত্তর ভ্যাট কমিশনারেটে প্রেরণ করা হয়েছে।