আটক হতে পারেন ইমরান খান

পাকিস্তানের ইতিহাসের অনাস্থা ভোটে প্রথমবারের মতো প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে ক্ষমতাচ্যুত হন ইমরান খান। তবে ইমরান খান অভিযোগ করে আসছেন তাকে বিদেশি শক্তির মাধ্যমে গদি থেকে হটানো হয়েছে এবং পাকিস্তানে আমদানি করা সরকার বসানো হয়েছে। গদি হারানোর পর থেকে পাকিস্তানের বিভিন্ন জায়গায় সমাবেশ করে আসছেন ইমরান । এরপর গত রবিবার (২২ মে) তিনি ঘোষণা দেন, তার দল ২৫ মে ইসলামাবাদে ‘আমদানি করা সরকারের’ বিরুদ্ধে বহুল প্রতীক্ষিত লং মার্চ শুরু করবে।

এরই প্রেক্ষিতে দেশটির বিভিন্ন জায়গা থেকে পিটিআইয়ের কর্মীরা ইসলামাবাদের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করেছে। দেশটির লাহোরে পিটিআইয়ের সমর্থক ও পুলিশের মধ্যে একাধিক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। দেশটির সংবাদ মাধ্যম জিও নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, লাহোর রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে। তবে ইমরান খানের আজাদি মার্চ রুখে দিতে দেশটির নিরাপত্তা কর্মীরা উচ্চ সতর্কতায় আছে।

দেশটির জিও নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পেশোয়ারে পথে পিটিআইয়ের চেয়ারম্যান ইমরান খান ও তার সহযোগীদের আটকের পরিকল্পনা করেছে দেশটির সরকার।

পাকিস্তানের শীর্ষ একজন নিরাপত্তা কর্মী বলেন, আজাদি মার্চ থেকে ইমরান খানকে রুখতেই তাকে আটক করা হতে পারে। ইমরান খান বলেছেন, পাকিস্তানের রাজনৈতিক ইতিহাসে এটি সবচেয়ে বড় মিছিল হতে যাচ্ছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মঙ্গলবার সরকার পিটিআই-এর ‘আজাদি মার্চ’ বানচাল করতে তার সমস্ত শক্তি ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই নিয়ে পুলিশ পিটিআই কর্মী ও কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে।

এছাড়া লাহোর, করাচি, ইসলামাবাদ এবং রাওয়ালপিন্ডির শহরে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। একই সঙ্গে ইসলামাবাদের সঙ্গে সংযুক্ত বিভিন্ন শহরের অভিমুখের রাস্তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।