অবশেষে ওএসডি রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড সচিব মোয়াজ্জেম হোসেন

আল আমিন হোসেন, রাজশাহী: রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের সচিব ড. মোয়াজ্জেম হোসেনকে মহান মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের সংখ্যা বিকৃতির অভিযোগে অবশেষে ওএসডি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারি) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের উপসচিব ড. ফরহাদ হোসেন স্বাক্ষরিত এক আদেশে তাকে ওএসডি করা হয়। আর শিক্ষাবোর্ডে নতুন সচিব হিসেবে পদায়ন দেয়া হয়েছে ফেনীর সোনাগাজী সরকারি কলেজের ইংরেজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. হুমায়ুন কবীরকে।

সচিব ড. মোয়াজ্জেম হোসেন ওএসডির ঘটনায় মিষ্টি বিতরণ করা হয়েছে রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডে। শিক্ষাবোর্ডের কর্মচারী-কর্মকর্তারা এ মিষ্টি বিতরণ করেন।

শিক্ষা বোর্ড সূত্র জানায়, মুজিববর্ষে শিক্ষাবোর্ডের একটি অনুষ্ঠানে মহান মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেন ড. মোয়াজ্জেম হোসেন। ওই অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, “আমি ইতিহাসের শিক্ষক। ইতিহাস নিয়ে আমার গবেষণা রয়েছে। মুক্তিযুদ্ধে শহীদ হয়েছে ৩ লাখ মানুষ। এর সাথে একটি ‘শূন্য’ বাড়িয়ে বলা হয়।”

তার এমন বক্তব্যের পর ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানান রাজশাহীর বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ বিশিষ্টজনেরা। রাজপথে কর্মসূচি ঘোষণা করে উত্তরবঙ্গের সর্ববৃহৎ অরাজনৈতিক স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন জননেতা আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদ ও সদ্য গঠিত রাজশাহী বরেন্দ্র প্রেসক্লাব সহ আরও চারটি জাতীয় সংগঠন। লাগাতার কর্মসূচির পাশাপশি ওই কর্মকতার্র শাস্তির দাবি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে স্মারকলিপিও প্রদান করে সংগঠনটি। এরপর শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে গঠন করা হয় তদন্ত কমিটি। তবে তদন্ত কমিটির তদন্ত প্রতিবেদন ধামাচাপা দেয়া হয় রহস্যজনকভাবে।

পরে আবারো কর্মসূচি দিয়ে ড. মোয়াজ্জেমের শাস্তি দাবি করা হয়। এসবের পরিপ্রেক্ষিতে সবশেষ ওএসডি করা হলো তাকে।

এ বিষয়ে কথা বলতে সচিব ড. মোয়াজ্জেম হোসেনকে ফোন দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। কথা বলতে বোর্ড চেয়ারম্যান প্রফেসর হাবিবুর রহমানকে ফোন দিলে তিনিও ফোন রিসিভ করেননি।